‘কবিরাই সব সময় আলোর পথ দেখায়’

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৪৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যশোর জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচকের বক্তব্যে প্রবীণ শিক্ষাবিদ অসিত বরণ ঘোষ বলেছেন, জাতির জীবনে অনেক সময় অন্ধকার ঘনিয়ে আসে। তখন জাতি সঠিক পথ দেখতে পারে না। এসময় পথ দেখানোর জন্য কিছু দিশারী ব্যক্তিত্বের দরকার হয়। যারা অন্ধকারকে জয় করতে পারেন। তিনি বলেন, কবিরাই সব সময় আলোর পথ দেখায়।
শনিবার বিকেলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে যশোরের জেলা প্রশাসন আয়োজিত মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এসময় মুখ্য আলোচকের বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, ঘৃণা পরিহার করতে হবে। কারো প্রতি ঘৃণা নিয়ে বেঁচে থাকার মানে হলো একটি বহমান কবর সঙ্গে নিয়ে চলা। যার প্রতি ঘৃণা পোষণ করা করা হয়, তার চাইতে যে ঘৃণা পোষণ করে বেঁচে থাকে সেই সবচে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মহৎ সাহিত্য মানুষকে ঘৃণা থেকে দূরে থাকতে সহায়তা করে।
আলোচনা পর্ব শেষে যশোরের সাংস্কৃতিক কর্মীরা কবিতা, গান ও তিনটি শ্রুতি নাটক পরিবেশন করেন। আলোচনা পর্বে যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম রব্বানী ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) অনিন্দিতা রায়। সঞ্চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাস।
এতে শুক্রবার অনুষ্ঠিত আবৃত্তি ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৪৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী কর্মসূচির প্রথম দিন আবৃত্তি ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

শেয়ার