খুলনার গৃহবধূ রাজিয়া হত্যা মামলা যশোর আদালতে স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ খুলনার খানজাহান আলী এলাকার গৃহবধূ রাজিয়া সুলতানা হত্যা মামলায় স্বামী জাহিদ হাসান নামে পলাতক এক সাবেক সেনাসদস্যকে যাবজ্জীবন কারাদ- ও অর্থদ- দিয়েছেন যশোরের আদালত। মঙ্গলবার যশোরের স্পেশাল জজ (জেলা জজ) আদালতের বিচারক শেখ ফারুক হোসেন এ রায় দেন। দ-প্রাপ্ত জাহিদ হাসান খুলনার ফুলতলা উপজেলার পাড়িয়ার ডাঙ্গা গ্রামের কাওছার আলী মোল্যার ছেলে। সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করে বিশেষ পিপি এসএম বদরুজ্জামান পলাশ। আর আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০৩ সালের ২৬ মে অভয়নগর উপজেলার রামগাতি গ্রামের পাশে ভৈরব নদী থেকে রাজিয়া সুলতানা নামে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে মৃত ওই নারী খুলনার খানজাহান আলী থানা এলাকার জাহিদ হাছানের স্ত্রী বলে জানা যায়। এ ঘটনায় তৎকালীন অভয়নগর থানার এস আই সাবান আলী বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি দিয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলা তদন্তে বেরিয়ে আসে স্ত্রী রাজিয়া সুলতানাকে স্বামী জাহিদ হাসান স্বর্ণের চেইন কিনে দেয়ার কথা বলে তার বাবার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যার পর লাশ নদীতে ভাষিয়ে দেয়। এঘটনার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সাবান আলী ২০০৪ সালের ২৫ এপ্রিল জাহিদকে অভিযুক্ত করে যশোর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বিভিন্ন সময় ৮জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে নিহতের স্বামী জাহিদ হাসানের বিরুদ্ধে দোষী সাব্যস্ত করে তাকে যাবজ্জীবন কারাদ- ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিন। জরিমানার টাকা অনাদায়ে তাকে আরো এক বছরের সশ্রম কারাদ-ের আদেশ দেয়া হয়েছে।

SHARE