মাগুরায় বেড়াতে এসে ধর্ষণের শিকার হলেন এক গৃহবধূ

মাগুরা প্রতিনিধি ॥ মাগুরায় ঈদুল ফিতরে বেড়াতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন লক্ষ্মীপুর জেলার এক গৃহবধূ। ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে তা ফাঁস করে দেয়ার হুমকি দিযে ওই গৃহবধূর কাছে চাঁদাও দাবি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রোববার নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ তিনজনকে আসামি করে মাগুরা সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মামলার এজাহার অনুযায়ী ১৭ বছর বয়সি ওই গৃহবধূ তার স্বামীর সঙ্গে ঢাকার মিরপুর এলাকায় একজনের বাসায় সাবলেট হিসেবে বসবাস করেন। যার বাসায় সাবলেট থাকেন তার শ্বশুরবাড়ি মাগুরায় সদর উপজেলার বারাশিয়া গ্রামে। উভয় পরিবারের ঘনিষ্টতার সূত্রে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ গত ৪ জুন মাগুরায় বেড়াতে আসেন। এ ঘটনার পর শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে স্বামীর সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলতে ঘরের বাইরে বের হলে বারাশিয়া গ্রামের আইয়ুব মোল্লার ছেলে লিটু মোল্লা (২৭), মুরাদ মোল্লার ছেলে রেজোয়ান মোল্লা (২১) ও সাইফুল বিশ্বাসের ছেলে শামিম বিশ্বাস (২১) জোর করে তাকে টেনে ধরে পাশের একটি পাট ক্ষেতে নিয়ে যায়। এরপর রেজোয়ান ও শামিম তাকে ধরে রাখে আর লিটু ধর্ষণে লিপ্ত হয়। পরে ধর্ষক লিটু ওই গৃহবধূর নগ্ন ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে। শুধু তাই নয়, ধর্ষণের পর তারা মোটা অংকের চাঁদা না দিলে ধর্ষণের ছবি ফাঁস করে দেয়া হবে বলেও হুমকি দেয়। বিষয়টি আশ্রিতার স্বামী জানতে পেরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে।
মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, এ বিষয়ে জোর পূর্বক অপহরণ করে ধর্ষণ ও সহায়তা করা এবং নগ্ন ছবি, ভিডিও চিত্র ধারণ ও চাঁদা আদায়ের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন আইন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।
ইতোমধ্যে আসামিদের ধরতে পুলিশি অভিযান শুরু হয়েছে বলেও তিনি জানান।

শেয়ার