বন্ধুর বাড়িতে সাবেক স্ত্রীকে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাঘারপাড়ায় সাবেক স্ত্রীকে বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ইউসুফ আলী। রোববার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মামুনুর রহমানের কাছে তিনি এই জবানবন্দি দেন। পরে ইউসুফকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
আসামি ইউসুফ আলী শেখ নড়াইল সদরের আফরা গ্রামের ইয়াকুব আলী শেখের ছেলে। একই সাথে মামলাটির অপর আসামি শিমুলকে আটক করেছে পুলিশ।
জবানবন্দিতে ইউসুফ শেখ জানিয়েছে, তিনি যশোরের অভয়নগরের নওয়াপাড়ায় একটি জুট মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। সেখানকার সহকর্মী এক নারীকে তিনি প্রেম করে বিয়ে করেন। কয়েক বছর সংসার করার পর বনিবনা না হওয়ায় গত মাসে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। তবে গত ঈদের দিন সাবেক স্ত্রী তাকে দেখা করতে বলেন। বাঘারপাড়ার ধলগ্রাম রাস্তার মোড়ে তার সাথে দেখা করেন ইউসুফ আলী। ওই সময়ে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সাবেক স্ত্রীকে বন্ধু শিমুলের বাড়িতে নিয়ে যান। বাড়িতে অন্যকেউ না থাকায় তিনি তার সাবেক স্ত্রীকে ধর্ষণ করেন। পরে ঘর থেকে বাইরে বের হলে শিমুল ঘরে গেলে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়।
এদিকে, ওই নারী দুইজনের বিরুদ্ধে বাঘারপাড়া থানায় গণধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেন। যাদের মধ্যে ইউসুফ শেখ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ওই জবানবন্দি দিয়েছে। আর অপর অভিযুক্ত শিমুল হোসেনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার