ক্রিকেট বিশ্বকাপের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

সামজের কথা ডেস্ক॥ বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদ্বোধন হলো ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ এর। বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় এক ঘণ্টার এই বর্ণিল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় বাকিংহাম প্যালেসকে ব্যাকড্রপে রেখে। আর আজ বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। বিকেল সাড়ে ৩টায় লন্ডনের ওভালে মুখোমুখি হবে তারা।
বুধবারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রথমে বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে মঞ্চে উঠলেন মাইকেল ক্লার্ক। ২০১৫ বিশ্বকাপে যার নেতৃত্বে শিরোপা জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। তার আগে বিশ্বকাপ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নাচে-গানে মেতে উঠলো লন্ডনের দ্য মল। বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে যোগ হলো অংশ নিতে যাওয়া ১০ দলের প্রতিনিধি হয়ে আসা অতিথিদের নিয়ে ‘স্ট্রিট ক্রিকেট’।
বুধবার ১ ঘণ্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধি ছিলেন স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক ও অভিনেত্রী জয়া আহসান। ৬০ সেকেন্ডের স্ট্রিট ক্রিকেটে বাংলাদেশের দুই অঙ্গনের তারকা মেতে উঠলেন ব্যাট হাতে। ১ মিনিটে কোন দল কত রান নিতে পারেন, সেই প্রতিযোগিতায় রাজ্জাক-জয়া জুটি বাংলাদেশের জার্সিতে স্কোরে জমা করতে পারেন ২২ রান।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটে বসেছিলেন আয়োজকরা। শুধু বলে এসেছিল, বাকিংহাম প্যালেসকে ব্যাকড্রপে রেখে সাজানো মঞ্চে চমক অপেক্ষা করছে। সেই চমকের বড় একটি অংশ ছিল এবারের বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়া ১০ দলের দুজন করে প্রতিনিধিকে হাজির করে তাদের মধ্যে স্ট্রিট ক্রিকেটের লড়াই জমিয়ে তোলা। মানে ৩০ মে মূল পর্ব শুরুর আগে সব দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে আগেই ক্রিকেট লড়াইয়ের উত্তাপ ছড়িয়ে দেওয়া।
এই লড়াইয়ে জিতেছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। কেভিন পিটারসেন ও ক্রিস হিউজ জুটি ৬০ সেকেন্ডে করেন ৭৪ রান। হার-জিত এখানে মোটেও কোনও বিষয় ছিল না, ক্রিকেটের উন্মাদনা ছড়িয়ে দিয়েই ছিল এই আয়োজন।
এই পর্ব শেষে গত বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ক্লার্ক স্বপ্নের ট্রফি হাতে উঠে আসেন মঞ্চে। এরপর এবারের বিশ্বকাপের অফিসিয়াল থিম সংয়ের মাধ্যমে শেষ হয় ১ ঘণ্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। বুধবারের এই আয়োজনের পর আজ বৃহস্পতিবার মাঠে গড়াচ্ছে ময়দানি লড়াই। এই লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দশটি দেশ। দেড় মাসের লড়াই শেষে ১৪ জুলাই নতুন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন পাবে ক্রিকেট বিশ্ব।

শেয়ার