বাগেরহাটেও ‘ছেলে ধরা’ রোহিঙ্গা আতঙ্ক, পুলিশ বলছে ‘গুজব’

বাগেরহাট প্রতিনিধি॥ সারাদেশের মত বাগেরহাটেও দেখা দিয়েছে ‘ছেলে ধরা’ রোহিঙ্গা আতঙ্ক। ‘ছদ্মবেশে দিনে অথবা রাতের আঁধারে রোহিঙ্গারা বাচ্চা অপহরণ করছে’ এমন গুজবে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে জেলার সর্বত্র। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার (১৬ মে) রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাগেরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের খারদ্বার গ্রামের সাহাপাড়া এলাকায় রাজীব মোল্লার ঘরের টিনের বেড়া কেটে তার ৭ মাস বয়েসী শিশু পুত্র আব্দুল্লাহকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই ধরনের অভিযোগ একই এলাকার কিশোর কুমার সাহার। তার অভিযোগ গত মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে জনৈক ব্যাক্তি তার ৮ মাস বয়েসী শিশু কন্যা আনিস্কাকে অপহরণের হুমকি দেয়।
সাহাপাড়া এলাকার ৭ মাস বয়েসী শিশু আব্দুল্লাহর মা কহিনুর বেগম বলেন, ‘রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে পরিবারের সবাই আমরা ঘুমিয়ে পরি। রাত সাড়ে ১১টার দিকে জানালার কাছে (যেখানে আমার ছেলে ঘুমিয়ে ছিল) টিনের বেড়া কেটে আমার ছেলে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। এসময় আমি সজাগ হয়ে গিয়ে আমার ছেলের পা টেনে ধরি। তখন এক ব্যক্তি আমার মুখ চেপে ধরে। এসময় আমি পা দাপাতে থাকলে আমার স্বামী সজাগ হয়ে ডাক চিৎকার দিলে আমার ছেলেকে ছেড়ে দিয়ে ওই ব্যক্তি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।’
শিশু আব্দুল্লাহর পিতা রাজীব মোল্লা বলেন, আমার ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে। এসময় খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
এদিকে একই ধরনের ঘটনা ঘটে সাড়াপাড়া এলাকার অপর বাসিন্দা কিশোর কুমার সাহার বাড়িতে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত মঙ্গলবার দুপুর আমার স্ত্রী মিথিলা সাহা আমাদের ৮ মাস বয়েসী শিশু কন্যা আনিস্কাকে ঘরে ঘুম পড়াচ্ছিলেন। এসময় কালো করে এক ব্যাক্তি জানালার কাছে এসে ‘তোর বাচ্চা আমাকে দিয়ে দে’ বলতে থাকে। ভয়ে আমার স্ত্রী চিৎকার দিলে ওই ব্যক্তি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
এ ব্যাপারে বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন জানান, ছেলে ধরা রোহিঙ্গা বিষয়ে যা প্রচার হচ্ছে তার সবই গুজব। বৃহস্পতিবার রাতের ঘটনা মূলত চুরি ঘটিত কোন বিষয় হতে পারে। রাতেই ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে। ওই শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগও করা হয়নি। তিনি সবাইকে গুজবে কান না দেওয়ার জন্য আহবান জানান।

শেয়ার