দেশের পথে মাশরাফি, লেস্টারের পথে মুশফিকরা

সমাজের কথা ডেস্ক॥ বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচ শেষ হয়েছে নির্ধারিত সময়ের বেশ পরে। পুরস্কার বিতরণী ও ফটো সেশন শেষেই শুরু হলো মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবালদের ছুটোছুটি। ফ্লাইট ধরার তাড়া! তাদের সঙ্গী আরও চার ক্রিকেটার। দলের অন্যদের তাড়া ছিল হোটেলে ফেরার। রাতে না হলেও তাদের ফ্লাইট শনিবার। গোছগাছের তাড়া ছিল তাদেরও।
আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশ পেয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম ট্রফি জয়ের স্বাদ। সেই আনন্দ সবাই একসঙ্গে উপভোগের সুযোগ সেভাবে মেলেনি। ম্যাচ জয়ের পর শুক্রবার রাতেই ডাবলিন ছেড়েছেন দলের ছয় ক্রিকেটার।
এই টুর্নামেন্ট ও আসছে বিশ্বকাপ মিলিয়ে আড়াই মাসের সফর। মানসিকভাবে চাঙা হতে ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে ক্রিকেটারদের ছোট্ট একটি ঐচ্ছিক ছুটি কাটানোর সুযোগ দিয়েছিল বিসিবি। মাশরাফি ও তামিম নিয়েছেন সেই ছুটি। মাশরাফি ফিরছেন দেশে। তার সঙ্গে দেশে ফিরছেন বিশ্বকাপ দলে না থাকা যে চারজন ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের দলে ছিলেন-ইয়াসির আলি, ফরহাদ রেজা, নাঈম হাসান ও তাসকিন আহমেদ।
কয়েক দিন পরিবারের সঙ্গে কাটিয়ে আবার আগামী বুধবার লন্ডন ফিরবেন মাশরাফি। বৃহস্পতিবার লন্ডনে বিশ্বকাপের সব অধিনায়ককে নিয়ে আইসিসির একটি আয়োজনে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক সেদিনই যাবেন কার্ডিফ।
ডাবলিন থেকে মাশরাফিদের সঙ্গেই দুবাই পর্যন্ত যাবেন তামিম। ঢাকা থেকে তার পরিবার সেখানে আগে থেকেই থাকবে অপেক্ষায়। তামিমও লন্ডন ফিরবেন বুধবার। বৃহস্পতিবার দলের সঙ্গে যোগ দেবেন কার্ডিফে।
বিশ্বকাপ স্কোয়াডের বাকি ১৩ জন আপাতত থাকছেন একসঙ্গেই। শনিবার ডাবলিন থেকে লন্ডন হয়ে তারা যাবেন লেস্টারে। সেখানে বিরতি দিয়ে তিন দিন অনুশীলন করবে দল। বৃহস্পতিবার লেস্টার ছেড়ে তাদের ঠিকানা হবে কার্ডিফ।
লেস্টারের অনুশীলনে থাকছেন না বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশও। জরুরি পারিবারিক প্রয়োজনে তিনি ফিরছেন জ্যামাইকায়। ক্যারবিয়ান কিংবদন্তিও দলের সঙ্গে যোগ দেবেন কার্ডিফে।
২৬ ও ২৮ মে কার্ডিফে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে আইসিসির অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার থেকেই আইসিসির অতিথি হিসেবে শুরু হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অভিযান। ২৯ মে কার্ডিফ থেকে লন্ডনে ফিরবে দল। ২ জুন বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ওভালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

শেয়ার