নিয়ম মানাই সবচেয়ে বড় প্রশিক্ষণ: যবিপ্রবি উপাচার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নিয়ম-রীতি মানাই হলো সবচেয়ে বড় প্রশিক্ষণ উল্লেখ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেছেন, বিশ^বিদ্যালয়কে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে অবশ্যই আইন মানতে হবে। ফ্রি স্টাইলে বিশ^বিদ্যালয়ে চললে হবে না। আমি যতদিন এ বিশ^বিদ্যালয়ে আছি, ততদিন এ বিশ^বিদ্যালয় আইনি অনুযায়ী চলবে।
রোববার বিকেলে যবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু একডেমিক ভবনের গ্যালারিতে পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধি ও মানোন্নয়নের জন্য কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রথম ধাপের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন এসব কথা বলেন। যবিপ্রবি প্রশাসনের সহায়তায় কর্মচারী সমিতি দুই দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে।
সময় মতো অফিসে আসার আহ্বান জানিয়ে অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, সময় মতো অফিসে আসতে হবে। নিজের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে সম্পন্ন করতে হবে। পরচর্চা করা যাবে না। এটা করলে শুধু ইহকালে না পরকালেও শাস্তি পেতে হয়। তিনি বলেন, সেই সবচেয়ে বেশি অসম্মানিত, যে কাজ না করে। একজন ভাইস চ্যান্সেলরও যদি কাজ না করে, আর আরেকজন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী যদি সঠিকভাবে কাজ করে। তাহলে সম্মান বেশি ওই চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরই, ভাইস চ্যান্সেলের নয়। আমরা সম্মানিত হবো আমাদের কর্ম দ্বারা। সুতরাং যে তার কাজ সঠিকভাবে করবে আমার কাছে সেই সবচেয়ে সম্মানিত।
প্রশিক্ষণের গুরুত্ব তুলে ধরে অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রশিক্ষণ একজন মানুষকে পরিপূর্ণ করে তোলে। কারণ প্রতিদিনই বিভিন্ন আইন-কানুন ও রীতি-নীতি পাল্টাচ্ছে। সুতরাং এসব সঠিক প্রয়োগের পূর্বে আমাদের ভালোভাবে জানতে হবে। আবার কেউ পেছনে পড়ে আছে, তাকে সামনের দিকে এগিয়ে আনতে ও সময়োপযোগী করতে প্রশিক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে।
কর্মচারী সমিতির সভাপতি সাজেদুর রহমান জুয়েলের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন যবিপ্রবির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আব্দুল মজিদ, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী আহসান হাবীব, হিসাব দপ্তরের পরিচালক জাকির হোসেন প্রমুখ। প্রথম ধাপের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরের প্রায় ৭৫ জন কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যবিপ্রবি কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদককে এম আরিফুজ্জামান সোহাগ।

শেয়ার