ছেলের খোঁজ পেতে এসপি’র হস্তক্ষেপ চেয়েছেন বৃদ্ধ পিতা

আব্দুল জলিল, সাতক্ষীরা॥ সাদা পোশাকধারী একদল লোক মাইক্রোবাসে এসে আমার ছেলে হাসান শেখকে তুলে নিয়ে গেছে। গত মঙ্গলবার রাত ১২ টার দিকে তাকে তুলে নিয়ে যাবার সময় বাধা দেয়ায় আমার ছেলের বউকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে যায় তারা।
শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে কাঁন্নাজড়িত কন্ঠে এ কথা বলেন হাসান শেখের বাবা শ্যামনগরের গাবুরা ইউনিয়নের চাঁদনিমুখা গ্রামের বৃদ্ধ আজিজুল শেখ। তিনি বলেন এরপর থেকে ছেলের কোনো খোঁজ পাইনি। এ নিয়ে কালিগঞ্জ থানায় তার ছেলের বউ একটি জিডি করেছেন বলে জানান তিনি।
আজিজুল শেখ বলেন, তার ছেলে ইটভাটা শ্রমিক। কালিগঞ্জের কুশলিয়ায় একটি ভাড়া বাড়িতে সে থাকে। সে কোনো অপরাধের সাথে জড়িত না। তবে শ্যামনগরে তার বিরুদ্ধে বন আইনে একটি মামলা আছে। এ মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে কয়েকদিন আগে।
তিনি জানান, গত মঙ্গলবার রাত ১২ টার দিকে একটি মাইক্রোতে সাদা পোশাকধারী কয়েকজন লোক তার ছেলের বাড়ি আসে। তারা তাকে বাইরে আসতে বলে। ঘরের বাইরে আসা মাত্রই তাকে আটক করে সাদা পোশাকধারীরা। তিনি জানান, পুত্রবধূ পলি বেগম এতে বাধা দিতেই তারা তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। এরপর থেকে হাসান শেখের আর খোঁজ মেলেনি। এ ব্যাপারে পলি বেগম কালিগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। নম্বর-৪২৪ ।
বৃদ্ধ আজিজুল শেখ বলেন, তার ছেলে কোনো ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত না। সে কোনো দলও করে না। তারপরও আইনের দৃৃষ্টিতে সে কোনো অপরাধের সাথে জড়িত হয়ে থাকলে তার বিচার চাই। কিন্তু সে কোথায় আছে তা আমাকে জানতে হবে।
তিনি বলেন আমার একমাত্র ছেলের মুক্তি চাই। অপরাধী হলে আমিই তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেবো। তিনি এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

শেয়ার