শরণখোলায় মাদক বহন না করায় শ্রমিককে নির্যাতন!

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ মাদক বহন না করায় বাগেরহাটের শরণখোলায় ডালিম তালুকদার (২৫) নামের এক মৎস্য শ্রমিককে হাতুড়িপেটা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাতে উপজেলা উত্তর কদমতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মুমুর্ষূ অবস্থায় ওই শ্রমিককে স্থানীয়রা একই রাতে উদ্ধার করে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শ্রমিক ডালিম সাংবাদিকদের বলেন, উত্তর কদমতলা এলাকার বাসিন্দা রুহুল আমীন গাজীর ছেলে মৎস্য ব্যবসায়ী টুকু গাজী (২৮) দীর্ঘদিন ধরে তাকে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকা থেকে গাঁজা ইয়াবাসহ নানা প্রকার মাদক দ্রব্য বহন করে আনতে বলেন। এতে ডালিম রাজী না হওয়ায় বুধবার সন্ধ্যায় তাকে রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে টুকু গাজীর বসত ঘরে আটক রেখে হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে হাত-পা বেধেঁ রাখে। মাদকের বিষয়ে ফাঁস না করার জন পরবর্তীতে আহত ওই শ্রমিকের কাছ থেকে সাদা ২টি স্ট্যাম্পে জোর পূর্বক স্বাক্ষর করিয়ে নেয়া হয়। বিষয়টি স্থানীয় বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা খাইরুল শরীফ জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে টুকুর বন্দিদশা থেকে ডালিমকে উদ্ধার করে এবং হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত ডালিমের মামা বাচ্চু তালুকদার বলেন, ঘটনার দিন খাইরুল শরীফ এগিয়ে না আসলে টুকুর অমানুষিক নির্যাতনের কারণে মৎস্য শ্রমিক ডালিমের জীবননাশের আশংকা ছিল। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে মাদক ব্যবসায়ী টুকু দিন দিন আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে। এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা খাইরুল শরীফ বলেন, ডালিমের উপর যে ধরনের নির্যাতন চালানো হয়েছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। এ ধরনের অপরাধকারীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার হওয়া উচিত। তবে মৎস্য ব্যবসায়ী টুকু গাজী দাবি করেন, জমি বাবদ ৩০ হাজার টাকা শ্রমিক ডালিমের নিকট তার পাওনা আছে। উক্ত টাকা না দেয়ায় ২/৪ টি চর থাপ্পর দিয়েছেন মাত্র। তবে তিনি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত নন।

শেয়ার