রাজীব গান্ধীকে নিয়ে মিথ্যা বলেছেন মোদী: সাবেক নৌ কর্মকর্তা

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ভারতের জাতীয় নির্বাচনে ভোটের লড়াইয়ের সঙ্গে প্রধান দুই দলের কথার লড়াইও জমে উঠেছে। সম্প্রতি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর বিরুদ্ধে রণতরী নিয়ে ‘প্রমোদ ভ্রমণে’ যাওয়ার অভিযোগ তুলেছেন। রাজীব গান্ধী ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস পার্টির সভাপতি রাহুল গান্ধীর বাবা।
গত বুধবার দিল্লিতে এক নির্বাচনী সমাবেশে মোদী বলেন, রাজীব গান্ধী তার পরিবার ও বন্ধুদের নিয়ে একটি দ্বীপে ছুটি কাটাতে যাওয়ার সময় নৌবাহিনীর বিমানবাহী রণতরী আইএনএস ভিরাট ব্যবহার করেছিলেন।
মোদীর অভিযোগ, ঘটনার সময় আইএনএস ভিরাট ভারতীর জলসীমা পাহারার দায়িত্বে ছিল। রাজীব গান্ধী রণতরীটি সেখান থেকে ডেকে পাঠিয়ে পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের দ্বীপে নিয়ে যেতে সেটি ব্যবহার করেছিল এবং তাদের সুরক্ষায় প্রায় ১০ দিন আইএনএস ভিরাট ওই দ্বীপের কাছে অবস্থান করেছে।
এমনকি রাজীবের বিরুদ্ধে নৌবাহিনীর সদস্যদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে ব্যবহারের অভিযোগও তুলেছেন মোদী।
সমাবেশে মোদী ২০১৩ সালে ইন্ডিয়া টুডে পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে রাজীব গান্ধীর ব্যাপারে এই অভিযোগ করেন বলে জানায় বিবিসি বাংলা।
ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে লেখা হয়েছিল, রাজীব গান্ধী স্ত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং দুই সন্তান রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা এবং তাদের কয়েকজন বন্ধু, সোনিয়ার মা, ভাই এবং সুপারস্টার অমিতাভ বচ্চনের পরিবার ছুটি কাটাতে লাক্ষাদ্বীপের একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপে গিয়েছিলেন।
নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা বিনোদ পাসরিচা প্রধানমন্ত্রী মোদীর ওই অভিযোগ ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’ বলে উড়িয়ে দেন। ১৯৮৭ সালে রাজীব গান্ধী যখন ভারতের প্রধানমন্ত্রী তখন বিনোদ আইএনএস ভিরাটের কমান্ডার ছিলেন।
তিনি এনডিটিভিকে বলেন, “রাজীব গান্ধী প্রশাসনিক কাজে লাক্ষাদ্বীপে গিয়েছিলেন। সেখানে দ্বীপের উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তার বৈঠক ছিল, তিনি সেখানে ছুটি কাটাতে যাননি। তার সঙ্গে সেখানে তার স্ত্রী, দুই সন্তান এবং আইএএসর কয়েকজন কর্মকর্তা ছিলেন।”
অমিতাভ বচ্চনের পরিবার বা সোনিয়া গান্ধীর বাবা-মা তাদের সঙ্গে ছিলেন কিনা প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমি যাদের কথা বলেছি তারা ছাড়া সেখানে অন্য কেউ যাননি। সশস্ত্র বাহিনীকে রাজনীতিতে ব্যবহার অন্যায় এবং অগ্রহণযোগ্য।”

শেয়ার