লাহোরে মাজারের কাছে বিস্ফোরণে নিহত ১০

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাকিস্তানের লাহোরে একটি মাজারের কাছে বিস্ফোরণে আট পুলিশসহ অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে।

হামলায় আরও ২৩ জন আহত হয়েছে, যাদের মধ্যে সাত জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকারী সংস্থার মুখপাত্র মোহাম্মদ ফারুক।

রোজা শুরুর একদিন পর স্থানীয় সময় বুধবার সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটের দিকে নগরীর দাতা গঞ্জে বক্শর দরবারের কাছে পুলিশের একটি চেক পোস্টেএলিট ফোর্সের গাড়ি লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়।

আত্মঘাতী এ হামলায় আট পুলিশ ও দুই বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

‘দাতা গঞ্জে বক্শ’ নামে পরিচিত সুফি আলি বিন উসমান আল হাজভেরির মাজার ‘দাতা দরবার’ দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বড় মাজার। প্রতি বছর অসংখ্য ভক্ত এই মাজার জিয়ারত করতে আসেন।

পুলিশ এ হামলার প্রধান লক্ষ্য ছিল বলে জানান লাহোর পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক আশফাক খান।

পাকিস্তানি তালেবান সংশ্লিষ্ট জঙ্গিদল হিজবুল আহরার এ হামলার দায় স্বীকার করেছে।

হামলার লক্ষ্য পুলিশ ছিল বলে জঙ্গিদলটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়।

“আমরা এমন সময়ে হামলা চালিয়েছি যখন পুলিশদের কাছে কোনো বেসামরিক নাগরিক ছিল না।”

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এ হামলার নিন্দা জানিয়ে প্রাদেশিক সরকারকে সব ধরনের সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছেন।
আহতদের স্থানীয় মায়ো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালটিতে জরুরি অবস্থা জারি করে আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পাঞ্জাবের স্বাস্থ্য সচিব সাকিব জাফর হাসপাতালটিতে অবস্থান করছেন।
ডননিউজটিভির তথ্যানুযায়ী, ২৬ জন আহত হয়েছেন এবং তাদের মধ্যে পাঁচ জনের অবস্থা সঙ্কটজনক।

বিস্ফোরণের পরপরই দ্রুতগতিতে উদ্ধার অভিযান চালানোর পর নিরাপত্তা বাহিনী এলাকাটি ঘিরে ফেলে। মাজারটি খালি করে ফেলা হয়েছে। দর্শনার্থীদের বিস্ফোরণস্থল থেকে দূরে সরিয়ে নেওয়া হয়।

ঘটনাস্থলে সশস্ত্র পুলিশের একটি বড় দল মোতায়েন করা হয়েছে। মাজারে প্রবেশ নিয়ন্ত্রিত করা হয়েছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হামলার নিন্দা জানিয়ে নিহতের প্রতি শোক এবং তাদের পরিবার ও আহতদের প্রতি গভীর সহানুভূতি জানিয়েছেন।

শেয়ার