আড়ংঘাটার কাপালীপাড়া গণহত্যার স্মরণে নির্মিত স্মৃতিফলক উন্মোচন

শুক্রবার বিকাল চারটায় দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ও একমাত্র গণহত্যা জাদুঘর ‘১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর’ তত্ত্বাবধানে নির্মিত খুলনার আড়ংঘাটার কাপালীপাড়া গণহত্যার স্মরণে শহিদ স্মৃতি ফলক উন্মোচন করেন গণহত্যা জাদুঘরের অন্যতম সুহৃদ বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য কবি আসাদ মান্নান। তিনি গণহত্যা জাদুঘরের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই নানাভাবে সম্পৃক্ত আছেন। অনুষ্ঠানে মুনতাসীর মামুন বলেন, এ জাদুঘরের অধীনে বধ্যভূমিতে ৩০টি স্মৃতিফলক, ২০ জেলায় গণহত্যা জরিপ, ৮০টি গণহত্যা নির্ঘন্ট প্রকাশ ও ১৫০ জন গবেষককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, আর্কাইভে মুক্তিযুদ্ধ সংক্রান্ত প্রায় ৯ হাজার ছবি ও দুষ্প্রাপ্য পত্র-পত্রিকা রক্ষিত রয়েছে। এই জাদুঘরই প্রথম ডিজিটাল জেনোসাইড ম্যাপ তৈরি করেছে এবং এ সব ক্ষেত্রে সহায়তা করেছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। শুধু তাই নয়, মন্ত্রণালয় জাদুঘরের জরাজীর্ণ ভবন ভেঙ্গে নতুন ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। সেই প্রকল্পের পরিচালক, জাতীয় জাদুঘরের সচিব জনাব মো. আব্দুল মজিদও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সকল শ্রেণী পেশার মানুষ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ট্রাস্টি শংকর মল্লিক। -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার