নবজাতকের পিতৃ পরিচয় দাবিতে যশোরে এক নারীর থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তালাকপ্রাপ্ত এক নারীকে রবি নামে এক যুবক দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে আসছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ওই নারী একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেছেন। বর্তমানে নবজাতকের পিতৃ পরিচয় দাবিতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তার মা। অভিযুক্ত রবি শহরতলীর পুলেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ প্রহরী। তিনি তপসীডাঙ্গা গ্রামের মকবুলের স-মিল এলাকার মৃত নূর ইসলামের ছেলে। এব্যাপারে নবজাতকের মা বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
বাদীর দায়ের করা মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, তিনি চাঁচড়া ইউনিয়নের রূপদিয়া-সাড়াপোল গ্রামের বাসিন্দা। ৭ বছর আগে একই গ্রামে বিয়ে হয়। সেই ঘরে একটি মেয়ের জন্ম হয়। গত ২ বছর পূর্বে স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় সম্পর্ক ছিন্ন হয়। এরপর মেয়ে নিয়ে তিনি পিতার বাড়িতে অবস্থান করেন। শহরতলীর পুলেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ প্রহরী তপসীডাঙ্গা গ্রামের রবি তাদের বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়া-আসার পথে মেয়েটিকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। রাজি না হওয়ায় তাকে বিয়ে প্রস্তাব দেয়া হয়। এক পর্যায়ে রাজি হলে ২০১৭ সালের ১৫ অক্টোবর রাত সাড়ে ১০টার দিকে কথা আছে বলে মোবাইল করে স্কুলে ডেকে আনে রবি। সেখানে তাকে বিয়ে করবে বলে প্রলোভন দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এভাবে প্রায়ই সেখানে এনে ধর্ষণ করা হয়। গত বছরের অক্টোবর মাসের দিকে ওই নারী বুঝতে পারেন তিনি গর্ভবতী হয়েছেন। এরপর থেকে বিয়ে করার জন্য রবিকে বলা হলে ঘুরাতে থাকে। সর্বশেষ গত ১ জানুয়ারি বিয়ে করার কথা বলে আবারো তাকে ডেকে এনে ধর্ষণ করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এরপর থেকে রবিকে মোবাইল করা হলে আর তিনি রিসিভ করেননি। গত ৯ এপ্রিল যশোরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হলে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। এরপর স্থানীয়দেরে দ্বা দ্বারে ঘুরছেন নবজাতক মেয়েটির পিতৃ পরিচয় পাওয়ার জন্য। কিন্তু নৈশ প্রহরী রবির পক্ষ থেকে কোন সাড়া না পেয়ে থানায় এ মামলা দায়ের করেছেন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অভিযুক্ত রবিকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

শেয়ার