গ্রাম্য দলাদলির জের লোহাগড়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে কুয়েত প্রবাসী নিহত ॥ আহত ৮

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি ॥ নড়াইলের লোহাগড়ায় গ্রাম্যদলাদলির জের ধরে প্রতিপক্ষের হাতে প্রাণ গেল কুয়েত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মিজানুর রহমান (৪৮) নামে এক প্রবাসীর। তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে অন্তত ৮জন।
নোয়াগ্রামের মেম্বর বুলবুল, এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার বিকালে নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের নোয়াগ্রামের সৈয়দ মিজানুর রহমান ও ত্রাণ কাজীর মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। ত্রাণ কাজী সৈয়দ মাসুম গ্রুপের লোক। এরই জের ধরে শনিবার (২৭ এপ্রিল) সকাল ৭টার দিকে দুই গ্রুপ গ্রামে মহড়া দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে পরিবেশ শান্ত করে চলে আসে। পুলিশ চলে আসার পর শনিবার দুপুর ২টার দিকে সৈয়দ মাসুম গ্রুপের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষ সৈয়দ মিজানুরের বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায়। এসময় দুইপক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষ চলাকালে ধারালো অস্ত্রের কোপে কুয়েত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মিজানুর রহমান মারাত্বক জখম হন। তাকে লোহাগড়া হাসপাতালে আসার পথে মৃত্যু হয়।নিহত সৈয়দ মিজানুর নোয়াগ্রমের মৃত সৈয়দ সিদ্দিক আলীর ছেলে।
লোহাগড়া হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তরা জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। অপরপক্ষ সৈয়দ মাসুম রেজা বলেন, সকালে মিজানুরের নেতৃত্বে আমাদের বাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে রয়েছে সৈয়দ বাকি আলী (৭৫), সৈয়দ ইমরান (৪০), সৈয়দ শওকত(৫৫), সৈয়দ সাচ্চু((১৮), সৈয়দ নওশেরসহ (৩৫) অন্তত ৮জন। আহতরা লোহাগড়া, নড়াইল সদর ও খুলনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, নিহতের পোষ্টমর্টেমের জন্য লাশ নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত। মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে এখনো কেউ আটক হয়নি।

শেয়ার