ভৈরব পাড়ে ১৫ দিনের মধ্য ঘাস রোপণের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেছেন, ‘দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে যে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে ‘ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০’ অন্যতম। এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ হিসেবে তার স্বরূপ ফিরে পাবে এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে। আগামী ৪/৫ বছরের মধ্যে এ কাজ দৃশ্যমান হবে। এ পরিকল্পনার আওতায় বড় নদীগুলোতে ড্রেজিং করে নাব্য ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি প্রশস্ততাও কমিয়ে আনা হবে এবং এর দুই পাশে অর্থনৈতিক জোন গড়ে তোলা হবে। এর ফলে কর্মসংস্থানেরও সৃষ্টি হবে। যার মাধ্যমে পুরো দেশের চিত্র পাল্টে যাবে।’ শুক্রবার সকালে যশোর সদর উপজেলার দৌলতদিহি এলাকায় ভৈরব নদ খনন কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। এসময় তিনি ভৈরব খনন কাজে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। তিনি নদীর পাড় রক্ষণাবেক্ষণে উদ্যোগী হতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের তাগিদ দেন। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে যেসব এলাকায় নদী খনন শেষ হয়েছে, সেসব এলাকায় নদীপাড়ের মাটি ড্রেজিং ও ঘাস রোপণের জন্য সময় বেঁধে দেন এবং তাকে অবহিত করার নির্দেশ দেন। প্র্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুল ইসলাম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের খুলনা বিভাগীয় প্রধান প্রকৌশলী সিদ্দিকুর রহমান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম, যশোরের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রবীর কুমার গোস্বামী উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার