পাইকগাছার ঐতিহ্যবাহী সরল খাঁ দীঘি নিয়ে পার্ক নির্মাণের দাবি

মো. আব্দুল আজিজ, পাইকগাছা (খুলনা) ॥ পাইকগাছা পৌরসভা প্রতিষ্ঠার গত ২২ বছর অতিবাহিত হতে চলেছে। অথচ, পৌর অভ্যন্তরে সরকারি কিংবা বেসরকারি পর্যায়ে আজও গড়ে উঠেনি পার্ক। ফলে দীর্ঘদিন চিত্ত বিনোদন থেকে বঞ্চিত রয়েছে পৌরবাসী। এলাকাবাসীর দাবী পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা ঐতিহ্যবাহী সরল খাঁ দীঘিতে চিত্ত বিনোদনের জন্য একটি নান্দনিক পার্ক নির্মাণ করা হোক। এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন এলাকাবাসী।
সূত্র মতে, ১৯৯৭ সালে ১ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন গদাইপুর ইউনিয়নের উপজেলা সদরের আংশিক এলাকা নিয়ে গঠিত হয় পাইকগাছা পৌরসভা। পর্যায়ক্রমে তৃতীয় শ্রেণির পৌরসভাটি উন্নীত হয়েছে প্রথম শ্রেণিতে। অতিবাহিত হতে চলেছে প্রতিষ্ঠার ২২ বছর। অথচ, এ দীর্ঘ সময়ে উপজেলা সদর কিংবা পৌর অভ্যন্তরে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে আজও গড়ে উঠেনি চিত্ত বিনোদনের তেমন কোন প্রতিষ্ঠান। উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পরিবারসহ পৌরবাসীর চিত্ত বিনোদনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় অনেকটা ঘরের মধ্যে আবদ্ধ রয়েছে এলাকাবাসী। অনেকেই মনে করছেন, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডে কয়েকশ বছরের পুরাতন যে সরলখাঁ দীঘি রয়েছে সংস্কার করার মাধ্যমে অত্র দীঘিতে নির্মাণ করা যেতে পারে একটি নান্দনিক পার্ক। প্রচলিত আছে, প্রায় ১৫ বিঘা আয়তনের ঐতিহ্যবাহী এ দীঘিটি কয়েকশ’ বছর আগে হযরত খানজাহান আলী (রহ.)-এর সহচর পীর সরল খাঁ এলাকার মানুষের সুপেয় পানি নিশ্চিত করার জন্য খনন করেন। দীঘিটিকে ঘিরে রয়েছে অনেক অলৌকিক ঘটনা।
এলাকাবাসীর দাবি ঐতিহ্যবাহী এ দীঘিটি ঘিরে নির্মাণ করা যেতে পারে একটি নান্দনিক পার্ক। গোপালপুর গ্রামের বয়াতী আব্দুল মজিদ জানান, মানুষের বেঁচে থাকার জন্য আনন্দের অনেক বেশি প্রয়োজন রয়েছে। অথচ, পৌরসভা প্রতিষ্ঠার ২২ বছর অতিবাহিত হলেও এলাকার কোথাও চিত্ত বিনোদনের জন্য কোন ব্যবস্থা নেই। সরল খাঁ দীঘিটির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব কার উপর এটি বড় বিষয় নয়, এটি একটি সরকারি পুকুর। সরকারিভাবেই অত্র দীঘিতে একটি পার্ক নির্মাণ করা হলে এলাকার মানুষের চিত্ত বিনোদনের কোন অভাব থাকবে না।
পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর জানান, সরল খাঁ দীঘিতে পার্ক করার জন্য পৌর পরিষদের পক্ষ থেকে দীর্ঘদিন চেষ্টা করা হচ্ছে। বিষয়টি বর্তমান সংসদ সদস্য মহোদয়কে একাধিকবার অবহিত করা হয়েছে। সংসদ সদস্য মহোদয় পার্ক নির্মাণ করার ব্যাপারে আন্তরিকভাবে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে পার্কের নকশা করার জন্য ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশনের সাথে যোগাযোগও চলছে। সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু বলেন, নির্বাচনী এলাকার কোথাও তেমন চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা নেই। বিষয়টি আমি নির্বাচিত হওয়ার আগে থেকেই উপলব্ধি করেছি। নির্বাচিত হওয়ার পর নির্বাচনী এলাকার দু’উপজেলায় দুটি পার্ক করার পরিকল্পনা গ্রহণ করি। যার মধ্যে পাইকগাছা পৌরসভার সরল খাঁ দীঘিতে একটি নান্দনিক পার্ক করার পরিকল্পনা রয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে পার্ক নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হবে। আর এটি হলে আশা করছি এলাকার মানুষের চিত্ত বিনোদনের সুব্যবস্থা হবে।

শেয়ার