শ্রীলঙ্কার হামলায় ‘আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক’ জড়িত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের দিন গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা হামলায় একটি ‘আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক’ সহায়তা করেছে বলে দাবি করেছেন কর্মকর্তারা।
হামলার পরদিনই শ্রীলঙ্কার কেবিনেট মুখপাত্র রাজিথে সেনারতেœ বলেছেন,“শুধু এ দেশেরই কোনো গোষ্ঠী এ হামলা চালিয়েছে তা আমরা বিশ্বাস করি না। আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কের সহায়তা ছাড়া এ ধরনের হামলা সফল হতে পারে না।”
রোববার ইস্টার সানডের পরবের মধ্যে দুই দফায় তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলসহ আট জায়গায় বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯০ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে আরো ৫শ’ জন।
শ্রীলঙ্কা সরকার এ হামলার জন্য স্বল্প পরিচিত একটি স্থানীয় জিহাদি গোষ্ঠীকে দায়ী করেছে।গোষ্ঠীটির নাম ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত (এনটিজে)। যদিও কোনো গোষ্ঠীই এখনো হামলার দায় স্বীকার করেনি। বিবিসি জানিয়েছে,পুলিশ এখন পর্যন্ত দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।
শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা হামলাকারীদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক খুঁজে বের করার জন্য বিদেশি সহায়তা চাইবেন বলে জানানো হয়েছে এক বিবৃতিতে।
সিরিসেনার কার্যালয় বলেছে,“স্থানীয় সন্ত্রাসীদের পেছনে বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠন জড়িত বলে গোয়েন্দা প্রতিবেদনে আভাস দেওয়া হয়েছে।এ কারণেই প্রেসিডেন্ট বাইরের দেশগুলোর সহায়তা চাইবেন।”
এর আগে রোববার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহ বলেছিলেন, নিরাপত্তা বিভাপগ হামলা হওয়ার ব্যাপারে আগেই জানতে পেরেছিল। কিন্তু সে তথ্যের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

শেয়ার