অভয়নগরে ওষুধ তৈরির কারখানা মালিকের বিরুদ্ধে র‌্যাবের মামলা

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি॥ অভয়নগরে সেই অবৈধ ওষুধ তৈরির কারখানা লাইফকেয়ার নিউট্রাসিউটিক্যাল্স এর মালিকসহ ৫জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব। শনিবার রাতে র‌্যাব-৬ এর এসআই হাফিজুর রহমান মল্লিক বাদি হয়ে অভয়নগর থানায় এই মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-২৩।
অভয়নগর থানা সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (২০ এপ্রিল) রাতে র‌্যাব-৬ এর এসআই হাফিজুর রহমান মল্লিক বাদি হয়ে লাইফকেয়ার নিউট্রাসিউটিক্যাল্স এর মালিক যশোরের কেশবপুর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের আব্দুল হালিম সরদারের চার ছেলে জিল্লুর রহমান, হুমায়ুন কবীর, স্থানীয় প্রতিনিধি আতাউর রহমান প্রিন্স ও ফিরোজ আহমেদসহ আটক ভ্যান চালক অভয়নগর উপজেলার গুয়াখোলা গ্রামের মৃত ইয়াছিন মোল্যার ছেলে আল-আমিনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-সি এর (ই) ধারায় এ মামলা দায়ের করা হয়।
মামলা ও আসামি আটকের ব্যাপারে অভয়নগর থানার অফিসাস ইনচার্জ আলমগীর হোসেন বলেন, ভ্যান চালক আল-আমিন আটক আছে। অপর ৪জন আসামি আটকে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। র‌্যাবের অভিযানে জব্দকৃত মালামাল আমাদের হেফাজতে রয়েছে।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) মধ্যরাতে অভয়নগর উপজেলা পরিষদ ও আকিজ জুট মিলের মাঝামাঝি গুয়াখোলা গ্রামে খানজাহান আলী সড়কের ৪৬৪নং বাড়িতে লাইফকেয়ার নিউট্রাসিউটিক্যাল্স (ফুড অ্যান্ড ফিড ডিভিশন) নামের অবৈধ ওষুধ তৈরির কারখানায় অভিযান চালায় র‌্যাব-৬। অভিযানে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল্স এর সেকলো ২০ গ্যাসের ওষুধের মত দেখতে সাড়ে ৫শ’ পিস সেকনো ২০ নামের গ্যাসের প্যাকেটকৃত ওষুধ, বিপুল পরিমান ওষুধ তৈরির কাঁচামাল, প্যাকেটিং করার জন্য দুইটি আধুনিক মেশিন, ১০টি সাদা কাপড়ের পোষাকসহ কাগজপত্র ও বিভিন্ন মাল জব্দ করা হয়। এসময় আল-আমিন নামের একজন ভ্যান চালককে আটক করে র‌্যাব।

শেয়ার