ফেরদৌসকে ধরে মমতাকে একহাত নিলেন মোদী

সমাজের কথা ডেস্ক॥ বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌসের কলকাতায় ভোটের প্রচারে অংশ নেওয়াকে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কড়া সমালোচনা করলেন নরেন্দ্র মোদী।
লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে শনিবার পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির প্রচার চালাতে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতাকে আগের মতোই ‘স্পিডব্রেকার দিদি’ আখ্যায়িত করে তাকে লক্ষ্য করে বাক আক্রমণ শানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী।
তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীকে আক্রমণ করতে গিয়ে এদিন মোদী বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌসের নির্বাচনী প্রচারে নামার প্রসঙ্গ তোলেন বলে দি স্টেটসম্যানের অনলাইন সংস্করণে বলা হয়েছে।
বিজেপি নেতা মোদী বলেন, “এটা আমাদের জন্য লজ্জার যে প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা মানুষ তৃণমূলের জন্য প্রচার চালাচ্ছে। সংখ্যালঘু ভোটারদের টানতে এই কৌশল নিয়েছে তারা।”
কলকাতার বাংলা চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে যাওয়া ফেরদৌস সম্প্রতি সেখানে রাজ্যে ক্ষমতাসীন মমতার দল তৃণমূলের এক প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে নেমে ব্যাপক সমালোচনায় পড়েন।
ওই ঘটনার পর কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপির নালিশে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করে এ অভিনেতাকে দেশ ছাড়ার নির্দেশ দেয়।
দেশে ফিরে আসা ফেরদৌস এই ঘটনার জন্য ভুল স্বীকার করে ইতোমধ্যে সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।
চলমান লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে শক্ত ভিত্তি নিতে চাইছে মোদীর দল বিজেপি; অন্যদিকে বামদের হটিয়ে ক্ষমতায় আসা মমতাও তার কর্তৃত্ব ধরে রাখতে সচেষ্ট। এই নির্বাচনের প্রচারে মোদী ও মমতার বাকযুদ্ধ ব্যাপকভাবে আলোচনায় আসছে।
মমতাকে পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়নের অন্তরায় হিসেবে চিহ্নিত করে তাকে ‘স্পিডব্রেকার দিদি’ বলেই সম্বোধন করছেন মোদী। অন্যদিকে ছেড়ে কথা কইছেন না মমতাও; তিনি মোদীকে বলছেন ‘এক্সপায়ারি বাবু’।
শনিবার পশ্চিমবঙ্গে ভোটের প্রচারে গিয়ে মোদী বিভিন্ন জনসভায় বক্তব্যে রাজ্যের জনগণকে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। মমতার শাসনকে তিনি ‘হুমকি, লুটতরাজ ও দুর্নীতির শাসন’ বলে আখ্যায়িত করেন।
মোদী আশা প্রকাশ করেন, এবার পশ্চিমবঙ্গের মানুষ মমতাকে হটাতে বিজেপির পক্ষেই রায় দেবে।
পাঁচ পর্বের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ইতোমধ্যে দুটি পর্বের ভোটগ্রহণ হয়েছে।

শেয়ার