ভারতে নির্বাচন: ভোটকেন্দ্রে ইভিএম ভাঙচুর, সংঘর্ষ-সহিংসতা

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ভারতে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরুর দিনই বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে ইভিএম ভাঙচুর, সংঘর্ষ, প্রার্থীর ওপর হামলা এবং সহিংসতায় প্রাণহানিসহ নানা অপ্রীতিকর ঘটনায় পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়েছে।
নানামুখী অভিযোগের মাঝেই চলেছে ভোটগ্রহণ। পশ্চিমবঙ্গের দিনহাটায় চার ঘন্টাতেই নির্বাচন কমিশনে ৪৬২ টি অভিযোগ এসেছে বলে জানিয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা।
বৃহস্পতিবার প্রথম দফায় ২০টি রাজ্যের ৯১টি আসনে ভোটগ্রহণ করা হয়েছে। রাজ্যগুলো হচ্ছে অন্ধ্রপ্রদেশ, অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, বিহার, ছত্তিশগড়, জম্মু ও কাশ্মীর, মহারাষ্ট্র, মনিপুর, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, ওড়িশা, সিকিম, তেলেঙ্গানা, ত্রিপুরা, উত্তর প্রদেশ, উত্তরাখ-, পশ্চিমবঙ্গ, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং লক্ষদ্বীপ।

পশ্চিমবঙ্গে সকালে ভোট চলার মধ্যেই রাজ্যের দিনহাটায় একটি বুথে ঢুকে ইভিএম, ভিভিপ্যাট ভাঙচুরের ঘটনায় উত্তেজনা দেখা দেয়। এ ঘটনায় বিজেপি-তৃণমূল একে অপরকে দোষারোপ করেছে।
পশ্চিমবঙ্গের দুটি কেন্দ্র কোচবিহার এবং অলিপুরদুয়ারেও ভোট চলছে। দুই আসনেই মূল লড়াই তৃণমূল এবং ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) মধ্যে।
কোচবিহারের তুফানগঞ্জে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে চারজন বিজেপি কর্মীর গুরুতর জখম হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপি কার্যালয় ভেঙে দেয়ার অভিযোগও উঠেছে।
ওদিকে, কংগ্রেস কোচবিহারে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের বিরুদ্ধে ভোটে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ তুলেছে। তৃণমূল নেতা রবীন্দ্রনাথ ঘোষ জানিয়েছেন, নিয়ম না মেনে বুথের মধ্যে ঢুকে পড়ছেন বিএসএফ জওয়ানরা। পাশাপাশি ইভিএম কারচুপির অভিযোগও তুলেছেন তিনি।
তৃণমূল এবং বিজেপি কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘিরে উত্তপ্ত হয়েছে দিনহাটাও। তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে ভোটারদের মারধরের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। তৃণমূল কর্মীদের হামলায় এক বিজেপি সমর্থক আহতও হয়েছে।
অন্যদিকে, প্রথম দফার ভোটেই রক্ত ঝরেছে অন্ধ্রপ্রদেশে। রাজ্যটির তাড়িপাত্রী কেন্দ্রে ওয়াইএসআর কংগ্রেস এবং তেলুগু দেশম পার্টির (টিডিপি) সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক টিডিপি নেতা নিহত হয়েছেন।
সংঘর্ষের সময় বেধড়ক মারধর করা হয় নেতা চিন্তা ভাস্কর রেড্ডিকে। যার জেরেই মৃত্যুর হয় তার। ঘটনাটিকে ঘিরে উত্তাল অন্ধ্রপ্রদেশের অনন্তপুর। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই অন্ধ্রপ্রদেশের বিভিন্ন বুথে ইভিএম-এর গন্ডগোলের জন্য ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়ায় বাধা পড়ে। যা নিয়ে দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে কলহ চরমে ওঠে।
ভোটকর্মীদের সঙ্গে বাগ্বিত-ায় জড়িয়ে তুলকালাম করে ফেলেন এ প্রার্থী। ইভিএম তুলে আছাড় মারেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গেই ওই প্রার্থীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অন্ধ্র প্রদেশের গুন্টাকাল বিধানসভা কেন্দ্রের একটি বুথে এ ঘটনা ঘটেছে।
অন্যদিকে, ইলুরু শহরে ওয়াইএসআর কংগ্রেসের এক ম-ল পারিষদের উপর আক্রমণ অভিযোগ এসেছে টিডিপি কর্মীদের বিরুদ্ধে। কুর্নুলেরও টিডিপি এবং ওয়াইএসআরসিপি কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে পাথর ছোড়াছুড়ি হয়। সবমিলিয়ে এ রাজ্যে উত্তপ্ত পরিবেশেই চলছে ভোটগ্রহণ।
মহারাষ্ট্রে গড়চিরৌলি বুথের কাছে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটেছে। গোটা দেশের সঙ্গে এখানেও ভোট হচ্ছে। বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ভোট বানচালের চেষ্টা করেছে মাওবাদীরা। ছত্তিসগড়ের বস্তারেও ভোটের দিন সকালে মাওবাদী-সেনা সংঘর্ষ হয়েছে। চলেছে গোলাগুলি। নারায়ণপুরে আইটিবিপি জওয়ানদের একটি কনভয় ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের দিকে যাওয়ার সময় হামলা চালায় মাওবাদীরা। পাল্টা গুলি চালিয়ে মাওবাদীদের দলটিকে হঠিয়ে দেন জওয়ানরা।
উত্তরপ্রদেশের কৈরানায় ভুয়া ভোটারদের ছত্রভঙ্গ করতে গুলি চালিয়েছে বিএসএফ। ২০-২৫ জন ভুয়া ভোটার ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ঢোকার চেষ্টা করছিলেন। তাদের কারো কাছে পরিচয়পত্র ছিল না। তারা আক্রমণাত্মক আচরণ করায় তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করতে গুলি চালায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত বিএসএফ জওয়ানরা। কিছু ক্ষণের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে ফের শুরু হয় ভোটগ্রহণ।

SHARE