যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে ১১তম গ্রেডে বেতনের দাবিতে সহকারী শিক্ষকদের মানববন্ধন

সমাজের কথা ডেস্ক॥ সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ে প্রস্তাবিত সহকারী প্রধান শিক্ষকরে পদ বাতিল করে প্রধান শিক্ষকের এক ধাপ নিচে ১১তম গ্রেডে সহকারী শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণের দাবিতে বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:
নড়াইল প্রতিনিধি জানান, প্রধান শিক্ষককের এক ধাপ নিচে ১১তম গ্রেডে সহকারী শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণের দাবিতে নড়াইল পিটিআই’র ডিপিএড শিক্ষার্থী ও বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি নড়াইল সদর উপজেলা শাখার উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের মাছিমদিয়া এলাকায় প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) এর সামনে ঘন্টাব্যাপী এই মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি নড়াইল সদর উপজেলা শাখার সভাপতি বদরুল আলম লিংকন, সহ সভাপতি রফিকুল ইসলামসহ প্রায় ২ শতাধিক সহকারী শিক্ষক।
মণিরামপুর থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা পরিষদের সামনে যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেন শিক্ষকরা। মানববন্ধন শেষে উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাকিল আলমের সভাপতিত্বে ও সহকারী শিক্ষক আনন্দ প্রকাশের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক, সেলিম রেজা, আসমা দিলসাজ, সিরাজুম মুনিরা, সরোজ রায়, প্রশান্ত কুমার, আসাদুজ্জামান, আব্দুল্লাহ আল ফারুখ, আফজাল হোসেন, হাফিজুর রহমান, নিপা মোনালিসা, মৌসুমী আক্তার, কৃষ্ণা কুন্ডু, ফাতিমা শোভা প্রমুখ।
এরআগে উপজেলার ২৬৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় শ’দুয়েক সহকারী শিক্ষক মানববন্ধনে অংশ নেন।
হুরগাতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাকিল হোসেন বলেন, বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা ১০ম গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন। কিন্তু আমরা সহকারী শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছি ১৪তম গ্রেডে। বেতন বৈষম্য নিরসনে প্রধান শিক্ষকদের পরের ধাপে ১১তম গ্রেডে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে আমরা রাস্তায় নেমেছি।
মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় উপজেলা পরিষদ এলাকায় মানববন্ধনে ৩০৯টি বিদ্যালয়ের প্রায় ১৪শ’ সহকারি শিক্ষক অংশ নেন।
এ সময় সহকারি শিক্ষক সমিতির সভাপতি মশিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, বদিউজ্জামান, এইচ.এম হুমায়ুন কবির, মাসুদ তালুকদার, নাছির হাওলাদার, ফজলুর রহমান রিপন, আল মামুন, জসিম উদ্দিন ও মিরাজুর রহমান বক্তৃতা করেন।
বক্তারা বলেন, ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি প্রধান শিক্ষকের পদ প্রয়োজন নেই। বেতন গ্রেডের বৈসম্যের অবসান চাই। প্রধান শিক্ষকের পরবর্তী ১১তম গ্রেডে সহকারি শিক্ষকদের বেতন দিতে হবে’।
মানববন্ধনে প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম বাবলু, রেহানা পারভিন রিয়া, তানজিম মানজার, জাহিদ হাসানসহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগন সংহতি প্রকাশ করেন। সহকারি শিক্ষকরা মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর দাবি সম্মলিত স্মরকলিপি প্রদান করেন।

SHARE