মাসুদ আজহারকে ‘সন্ত্রাসী’ ঘোষণার প্রস্তাব আটকাল চীন

সমাজের কথা ডেস্ক॥ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদের শীর্ষ নেতা মাসুদ আজহারকে ‘সন্ত্রাসী’ ঘোষণার একটি প্রস্তাব আটকে দিয়েছে চীন।
ফেব্রুয়ারিতে কাশ্মীরের পুলওয়ামায় এই জঙ্গিগোষ্ঠীটির এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ভারতীয় আধাসামরিক বাহিনীর ৪০ জনেরও বেশি জওয়ান নিহত হয়েছিল। ওই হামলা দক্ষিণ এশিয়ার পরমাণু শক্তিধর দুই দেশ ভারত ও পাকিস্তানকে যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গিয়েছিল।
জঙ্গিগোষ্ঠীটির নেতা মাসুদ আজহারকে ‘সন্ত্রাসী’ ঘোষণার প্রস্তাব বুধবার নিরাপত্তা পরিষদে উত্থাপিত হয়েছিল বলে জানিয়েছে বিবিসি। প্রস্তাবে মাসুদ আজহারের সম্পদ জব্দ, তার ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রসঙ্গও রাখা হয়।
কিন্তু প্রস্তাব পরীক্ষায় আরও সময় দেওয়ার অনুরোধ জানায় চীন। সে পর্যন্ত প্রস্তাবটি স্থগিত রাখার অনুরোধও জানায় তারা।
বেইজিংয়ের অনুরোধে স্থগিত হয়ে যাওয়া প্রস্তাবটি নয় মাস পর্যন্ত মুলতুবি রাখা হতে পারে বলে জানিয়েছে বিবিসি।
পাকিস্তানের ঘনিষ্ঠ মিত্র চীন এ নিয়ে চতুর্থবার নিরাপত্তা পরিষদে জইশের মাসুদ আজহারকে ‘সন্ত্রাসী’ ঘোষণার প্রস্তাব আটকাল। ভারতের সরকার প্রস্তাবটি উত্থাপন ও সমর্থন জানানো দেশ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।
এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, “আমাদের নাগরিকদের ওপর ঘৃণ্য আক্রমণে জড়িত সন্ত্রাসী নেতাদের বিচারের মুখোমুখি করতে সম্ভাব্য সকল পথে চেষ্টা অব্যাহত রাখা হবে।”
জাতিসংঘে চীনের দূতাবাস জানিয়েছে, তারা প্রস্তাবটি নিয়ে ‘দায়িত্বশীল মনোভাব’ দেখানোর চেষ্টা করেছে।

“সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টির সুরাহা করতে চাই আমরা,” বলেছে তারা।
১৯৯৯ সালে ভারত থেকে ছাড়া পাওয়ার পর মাসুদ আজহার সশস্ত্র গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ প্রতিষ্ঠা করেন।
ভারতীয় একটি বেসামরিক বিমান ছিনতাই করে তালেবানশাসিত আফগানিস্তানে নিয়ে যাওয়ার পর এর ক্রু ও যাত্রীদের জীবনের বিনিময়ে নয়া দিল্লি যে তিনজনকে ছেড়ে দিয়েছিল, মাসুদ ছিলেন তাদের একজন।

SHARE