যশোরের স্কুলের পিকনিক বাস উল্টে চুকনগরের পুকুরে

এক ছাত্রী নিহত, আহত অন্তত ৩০

নিজস্ব প্রতিবেদক ও চুকনগর প্রতিনিধি॥ যশোর সদর উপজেলার শ্যামনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের একটি পিকনিক বাস উল্টে মেঘলা নামে এক ছাত্রী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত আরো ৩০ জন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে যশোর-খুলনা মহাসড়কের চুকনগর এলাকার চাকুরিয়া মাদ্রাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মেঘলা ওই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।
ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব হোসেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে ১৫ জনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। তবে আহতদের মধ্যে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক মনিরুল ইসলাম (৪০) ও রেশমা বেগম (৩০) এবং শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ (১১) ও জেবা খাতুনের (১৬) অবস্থা আরো খারাপ হয়ে যাওয়ায় তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আর ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন বিদ্যালয়টির আয়া আমেনা বেগম (৪৫), শিক্ষার্থী রিমা (১৪), লাবনী (১৪), খাদিজা (১৫), জিনিয়া (১৩), টুম্পা (১২), মাসুরা (১৩), সুমাইয়া (১৪), মমতাজ (১৫) নিলা (১৩) এবং আফরোজা (২০)। এ ছাড়া শিরিনা, রাফিয়া, নিলাসহ আরো অন্তত ১৫ জন আহত হয়। তাদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
তবে নিয়ম থাকলেও এতো শিক্ষার্থী নিয়ে জেলার বাইরে পিকনিকে গেলেও স্কুল কর্র্তপক্ষ সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে কোন অনুমতি নেয়নি বলে জানা গেছে।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক রামকৃষ্ণ বিশ্বাস এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক রহমত আলী জানান, তারা বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীদের নিয়ে তিনটি বাসে করে যশোর থেকে বাগেরহাট যাচ্ছিলেন। তিনটির মধ্যে দুইটি বাস খানিকটা আগে চলে যায়। তৃতীয় বাসটিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থী মিলে মোট ৬৯ জন যাত্রী ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই বাসটি খাদে পড়ে উল্টে যায়। তখন স্থানীয়রা বাসের মধ্যে থাকা যাত্রীদের উদ্ধার করতে শুরু করে। পরে ডুমুরিয়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি এসে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যায়।
যশোর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ইব্রাহিম জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার কাছে খবর আসে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে অবস্থিত শ্যামনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পিকপিন বাস উল্টে এক ছাত্রী মারা গেছে। আহত হয়েছে আরো অন্তত ৩০ জন। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।
জানা যায়, পিকনিকের বাস উল্টে ছাত্রী নিহতের ঘটনার খবর আসার পরপরই যশোরের জেলা প্রশাসন তৎপর হয়ে ওঠে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে খুলনা জেলা প্রশাসক ও ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে আহতদের চিকিৎসার ব্যাপারে খোঁজ খবর নেওয়া হয়।
এব্যাপারে যশোর জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল বলেন, আমরা জানতে পেরেছি কোন ধরনের অনুমতি না নিয়েই স্কুল কর্তৃপক্ষ জেলার বাইরে শিক্ষার্থীদের নিয়ে পিকনিকে গিয়েছে। এজন্য সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
একই সাথে অন্যদের সতর্ক করে জেলা প্রশাসক বলেন, সবাইকে সরকারি নির্দেশনা মেনেই চলতে হবে। শুধু এই স্কুল নয়, যে সব প্রতিষ্ঠান অনুমতি না নিয়ে জেলার বাইরে শিক্ষার্থীদের নিয়ে পিকনিকে যাবে তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

SHARE