মালয়েশিয়ায় হঠাৎ ধরপাকড়, ৩২০ প্রবাসী আটক

মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশ। হঠাৎ করে এ ধরপাকড়ে আতঙ্কে রয়েছেন দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসীকর্মীরা। ৫ ফেব্রুয়ারি ছিল মালয়েশিয়ার চাইনিজ ধর্মাবলম্বীদের নতুন বছরের সূচনা। বছরের শুরুতে অফিস-আদালত বন্ধ থাকে।

লম্বা ছুটির ফাঁকে সবাই ঘোরফেরায় ব্যাস্ত থাকেন। চায়নিজ নিউ ইয়ারের ছুটির প্রথম দিনেই ফাঁদ পাতে ইমিগ্রেশন ও পুলিশ। স্থানীয় সময় ৫ ফেব্রুয়ারি আড়াইটার দিকে রাজধানী কুয়ালালামপুরের বুকিত বিন্তাং ও বিকেল ৪টায় পেট্রোনাস টুইন টাওয়ারের পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ।

এ সময় চলাচলরত বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের শ্রমিকদের কাগজপত্র তল্লাশি চালিয়ে প্রায় আড়াই শতাধিক অভিবাসীকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ।

জানা গেছে, সমুদ্রঘেরা পেনাং শিল্প শহরে অভিযানে পেনাং সেন্ট্রাল থেকে সর্বমোট ৩২০ জনকে আটক করে অভিবাসন বিভাগ। আটকদের মধ্য থেকে যাচাই-বাছাই করে ২৪ বাংলাদেশি, মিয়ানমারের ২৪ পুরুষ ও ৩ জন নারী, ভিয়েতনামের ৩ জন নারী ও ১ জন পুরুষ, ইন্দোনেশিয়ার ৫ নারী ও ৫ জন পুরুষ, নেপালের ৪ জন ও ইন্ডিয়ার ১ জন গ্রেফতার করে পেনাং ইমিগ্রেশন বিভাগ।

গ্রেফতারদের কাছে মালয়েশিয়ার বৈধ কোনো কাগজপত্র না থাকায় ছিল না বলে জানান অভিবাসন বিভাগ। মালয়েশিয়ার সব থেকে দীর্ঘতম ছুটি উপভোগ করে চাইনিজ নিউ ইয়ারে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা। অধিকাংশ কল কারখানায় ৫ থেকে ৬ দিনের ছুটিতে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা তাদের আত্মীয়-স্বজনসহ বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে দেখা করতে এক প্রান্ত অন্য প্রান্তে ঘুরে বেড়ায়।

আর এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অভিবাসন বিভাগ মালয়েশিয়ার কল কারখানা খ্যাত পেনাং শহরের বাস স্টপ এবং শপিংমলে সকাল ৯টা থেকে অভিযান শুরু করে বিকালে শেষে অবৈধ অভিবাসীদের গ্রেফতার করে। অভিযানের সময় অনেক বৈধ শ্রমিকদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।