কেশবপুরের নজু ডাকাতের গুলিবিদ্ধ লাশ মিললো মণিরামপুর মাঠে

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর ও নেংগুড়াহাট প্রতিনিধি ॥ যশোরের মণিরামপুরে নজরুল ইসলাম ওরফে নজু (৩৮) নামের এক ডাকাতের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নজু পার্শ্ববর্তী কেশবপুর উপজেলার হাড়িয়াঘোপ গ্রামের হোসেন সাপুড়িয়ার ছেলে। লাশের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন কেশবপুর উপজেলার বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজেদ হোসেন।
বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলার রাজগঞ্জ এলাকার ক্রাইম পয়েন্ট খ্যাত জামতলাস্থ রামপুর-শাহপুর গ্রামের জনৈক মশিয়ার রহমানের মসুরি ক্ষেত থেকে এ লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারনা করছে দু’দল ডাকাতের গোলাগুলিতে এ ঘটনা ঘটতে পারে। এসময় লাশের পাশ থেকে একটি পাইপগান ও ত্রিশুল উদ্ধার হয়। লাশের পরণে লুঙ্গি, গেঞ্জী, কালো জ্যাকেট ও পায়ে চামড়ার জুতা রয়েছে। তার মাথায় একটি গুলির চিহ্ন রয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে।
এদিন সকালে গাছিরা খেজুরের রস সংগ্রহ করতে গিয়ে মাঠে লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। থানার এসআই জহির রায়হান জানান, রাতে দু’দল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলিতে এ ঘটনা ঘটতে পারে। লাশের পাশ থেকে অস্ত্র উদ্ধারের কথা নিশ্চিত করেন তিনি।
ইউপি চেয়ারম্যান আমজেদ হোসেন জানান, নজু কুখ্যাত ডাকাত ছিলো। বছর চারেক আগে সে এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে চলে যায়। লাশ নিয়ে আসার জন্য নজুর পিতা হোসেন এদিন দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিতে আসে। একটি সূত্র জানায়, মাস চারেক আগে মণিরামপুর উপজেলার বাকোশপোল গ্রামের সৈয়দ ঝি’র বাড়িতে স্ত্রী ও এক ছেলে নিয়ে ভাড়ায় থাকতো।
বাকোশপোল গ্রামের রাজু জানান, সোমবার রাত ১২ টার দিকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে একদল নজরুলকে ধরে নিয়ে যায়। পরদিন মঙ্গলবার সকালে নজুর স্ত্রী ছেলেকে নিয়ে ভাড়া বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। থানার ওসি সহিদুল ইসলাম বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার