বাগেরহাটে বাস-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৪জন নিহত, আহত ৩০

বাগেরহাট প্রতিনিধি॥ বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় যাত্রীবাহি দূরপাল্লার বাসের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৪ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৩০ জন। মঙ্গলবার দুপুরে মোংলা-মাওয়া মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার পিলজং ইউনিয়নের কলমের দোকান এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতদের একজন হলেন ট্রাক চালক মো. কামরুজ্জামান। তার বাড়ি সাতক্ষীরায়। তাক্ষণিকভাবে বাকি হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। হতাহতদের উদ্ধার করেছে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় ৩ ঘন্টা পর মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।
মহাসড়ক পুলিশের কাটাখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মলায়েন্দ্র নাথ রায় বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের একটি যাত্রীবাহী বাস মোংলা-মাওয়া মহাসড়কের বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার কলমের দোকান এলাকায় পৌছালে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে টুঙ্গিপাড়া পরিবহনের দুই যাত্রী ও ট্রাক চালক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত ৩০ জনকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে আরও এক যাত্রী মারা যায়। দুর্ঘটনার পর মোংলা-মাওয়া মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। প্রায় ৩ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকার পর মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিস খুলনা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, যাত্রীবাহী বাস ও বালু বোঝাই ট্রাক দুমড়েমুচড়ে গেছে। এতে হতাহতরা গাড়ির মধ্যে আটকা পড়ে। ট্রাক চালকের মরদেহ প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে বের করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ভ্যান চালক আব্দুল জব্বার ঢালী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান কাজী শামীম বলেন, বেপরোয়া গতিতে একটি গাড়িকে অতিক্রম করতে গিয়ে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস এই দুর্ঘটনা ঘটায়।

শেয়ার