প্রেসিডেন্টকে ঘুষ দিয়েছিলেন মাদক সম্রাট’

সমাজের কথা ডেস্ক॥ কুখ্যাত মাদক চোরাকারবারী হোয়াকিন ‘এল চাপো’ গুজমান একসময় মেক্সিকোর সাবেক প্রেসিডেন্ট এরিকে পেইনা নিয়েতোকে ১০ কোটি ডলার ঘুষ দিয়েছিলেন বলে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন সাবেক এক সহযোগী।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালতে এ কথা বলার আগে গুজমানের ওই সাবেক সহযোগী মার্কিন কর্তৃপক্ষকেও এমন তথ্য দিয়েছিলেন।

আলেক্স ফিফুয়েন্তেস নামের ওই ব্যক্তি নিজেকে ‘এল চাপোর’ এক সময়ের ‘ডান-হাত’ বলে বর্ণনা করেছেন।
ব্রুকলিনের ফেডারেল আদালতে গুজমানের অন্যতম আইনজীবী জেফ্রি লিটম্যান তাকে জেরা করার সময় ফিফুয়েন্তেস ঘুষের এই অভিযোগে নিয়ে আলোচনা করেন।
‘গুজমান এই ঘুষ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন’, মার্কিন কর্তৃপক্ষকে ২০১৬ সালে তিনি এমন কথা বলেছিলেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে ফিফুয়েন্তেস বলেন, “তা ঠিক”।

সাক্ষ্যে ফিফুয়েন্তেস জানান, পেইনা নিয়েতো প্রথমে গুজমানের কাছে ২৫ কোটি ডলার চেয়ে পাঠিয়েছিলেন এমন কথা তিনি যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষগুলোকে বলেছিলেন।

কৌঁসুলিদের তিনি জানান, ২০১২ সালের অক্টোবরে পেইনা নিয়েতোকে ঘুষের অর্থগুলো দেওয়া হয়েছিল, যে বছর তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

সাক্ষ্যে ফিফুয়েন্তেস আরও জানান, পেইনা নিয়েতোর কাছ থেকে একটি বার্তা পেয়েছেন এবং তিনি আর পালিয়ে থাকতে পারবেনা না বলে বার্তায় জানানো হয়েছে বলেও একসময় গুজমান তাকে জানিয়েছিলেন।

এ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে পেইনা নিয়েতো বা তার সাবেক মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি, তবে এর আগে পেইনা নিয়েতো ঘুষের অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

ওই সময় পেইনা নিয়েতো এ অভিযোগটিকে ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা ও মানহানিকর’ বলে দাবি করেছিলেন।
পেইনা নিয়েতোর সাবেক চিফ অব স্টাফ ফ্রানসিসকো গুজমান এই অভিযোগকে ‘মিথ্যা’ দাবি করে এক টুইটে বলেছেন, “পেইনা নিয়েতোর সরকারই মেক্সিকান অপরাধ শিরোমনিকে খুঁজে বের করে আটক করার পর তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করেছিল।”
এ অভিযোগটি গুজমানের বিচার চলাকালে উঠে আসা সবচেয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ। নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া এ বিচারে এর আগে নিচুস্তরের দুর্নীতি বিষয়ক বিভিন্ন অভিযোগের সাক্ষ্য পাওয়া গিয়েছিল।

শেয়ার