যশোরে উত্ত্যক্তের জের ধরে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
জড়িতরা ১২দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে উত্ত্যক্তের জের ধরে স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করার ১২দিনেও জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। অভিযোগ রয়েছে এ মামলার আসামি নিরব ও জীবন এবং তাদের স্বজনরা মামলা প্রত্যাহারের জন্য বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এতে নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে ওই পরিবারের সদস্যরা।
যশোর সদর উপজেলার আবাদ কচুয়া গ্রামের বিশ্বাসপাড়ার নূর মোহাম্মদ বিশ্বাসের মেয়ে হালিমা খাতুন রামনগর মোজাদ্দেদিয়া দারুস সুন্নাহ দাখিল মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করতো। গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে মা ও ভাই ভোট দিতে যান। এসময় হালিমাও তাদের সাথে যায়। ভোট দিয়ে ফেরার পথে ইউসুফ, নিরব, জীবন, সুমন, শান্ত, রাশেদ ও আশিকসহ কয়েকজনে হালিমার হাত ধরে টানাটানি করে। এসময় বাধা দিলে তার মা ও ভাইকে মারপিট করে ওই দুর্বৃত্তরা। এ লজ্জায় পরদিন সকালে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে হালিমা। এঘটনায় তার ভাই আব্দুল্লাহ বাদী হয়ে ৩১ ডিসেম্বর কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। কিন্তু গত ১২ দিনেও কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে আসামিরা এলাকায় প্রকাশ্যে থেকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য বাদী ও তার পরিবারের লোকদের অব্যাহতভাবে হুমকি দিয়ে আসছে।
নিহতের ভাই আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, বর্তমানে আসামিদের ভয়ে তারা বাজারে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। তার পিতা ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। কিন্তু আসামি ও তাদের স্বজনদের ভয়ে বাড়ি থেকে বের হতে পারছেন না।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালি থানার এসআই সোবহান শরীফ জানিয়েছেন, আসামি গ্রেপ্তারের জন্য এলাকায় গেলেও তাদের পাওয়া যাচ্ছে না। এঘটনার পর থেকে আসামিরা সকলেই আত্মগোপনে রয়েছে।

SHARE