ব্যক্তিক্রমী ‘মানবতার দেয়াল’ সাড়া ফেলেছে বেনাপোলে

এম এ রহিম, বেনাপোল॥ বেনপোল সীমান্তে ব্যতিক্রমী মানবতার দেয়াল নির্মান করে সাড়া ফেলেছে তারুন্য-১৮র ১৮ শিক্ষার্থী। শৈত্যপ্রবাহে যখন কাঁপছে দেশ দুর্ভোগে এলাকার ছিন্নমূলের মানুষ, সে সময় যশোর বেনপোল মহাসড়কের পাশেই জনসম্মুখে উন্মুক্ত স্থানে দেয়ালে লেখা হয়েছে মানবতার দেয়াল। এক পাশে লেখা হয়েছে এখানে আপনার অপ্রয়োজনীয় জিনিস রেখে যান। আর এক পাশে লেখা হয়েছে আপনার প্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে যান। বাসাবাড়ীতে বা ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠানে থাকা পুরানো ও অপ্রয়োজনীয় শত শত বস্ত্র, আসবাপত্র স্বেচ্ছায় মানবতার দেয়ালে রেখে যাচ্ছেন স্থানীয়রা। এসব বস্ত্র মনের আনন্দে নিয়ে যাচ্ছে পথচারিসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষেরা। আর অপ্রয়োজনীয় বস্ত্র দিয়ে সাধারন মানুষের উপকার করতে পারায় খুশি অনেকে। আব্দুল জব্বার ও মরিয়ম বেগম এবং আবদার হোসেন জানান বাড়ীতে অনেক ভাল ভাল পোষাক নষ্ট হয়ে যায়। ছোট হয়ে যায় অনেক জামাকাপড়। এসব জিনিস তারুন্য ১৮ আহব্বানে সাড়া দিয়ে মানবতার দেয়ালে রেখে যেতে পেরে ভাল লাগছে।
এদিকে মানবতার দেয়ালে সাড়া দিয়ে শুক্রবার আলোচনা সভা করেছে এলাকার মানুষ। এসময় উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান বজলুর রহমান, শার্শা উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক এম এ রহিম, কাউন্সিলর আহাদুজ্জামান বকুল, সাংবাদিক মসিয়ার রহমান, আজিজুল হক, স্থানীয় ফজলুর রহমান, এয়াকুব আলী, নাসির উদ্দিন, শুকুর আলী,মিজানুর রহমান, আলীহোসেন, রায়হান খান, আলামিন, আসিফ, সাকিব, রাব্বি, মাসুদ, মামুন মেহবুব,মাসুদ প্রমুখ।
উল্লেখ্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া শিক্ষার্থী বেনাপোল বড় আঁচড়া গ্রামের রোমিও হাসান হিরোর আহব্¦ানে তারুন্য ১৮উদ্যোগে সমমনা ১৮জনকে নিয়ে গঠন করা হয় মানবতার দেয়াল।

SHARE