চিকিৎসা শিক্ষা শেষে মানবসেবা করতে হবে : প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভাট্টাচার্য্য নবীন শিক্ষার্থীদের উদেশ্যে বলেছেন, ‘চিকিৎসা শিক্ষার পাশাপাশি শুদ্ধতা, সততা, সাহসিকতা, সমবেদনা চর্চা এবং একজন দেশপ্রেমিক সুনাগরিক হিসাবে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। চিকিৎসা শিক্ষা গ্রহণ করে মানব সেবা করতে হবে।
বৃহস্পতিবার সকালে যশোর মেডিকেল কলেজের (যমেক) ৯ম ব্যাচের নতুন ৫৭ জন এমবিবিএস শিক্ষার্থীদের পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি আরও বলেন, ১৯৭২ সালে ১০ জানুয়ারি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করেন। যা বাঙালি জাতির জন্য আনন্দের দিন। এ দিন নতুন শিক্ষার্থীদের অভ্যার্থনার আয়োজন করায় কলেজ কর্তৃপক্ষকে সাধুবাদ জানান তিনি।’
দিনের শুরুতে যমেক কর্তৃপক্ষ নবীন শিক্ষার্থীদের সদরে গ্রহণ করতে দিনব্যাপি অনাড়ম্ব অয়োজন করেন। ‘চিকিৎসার শিক্ষার জন্য এসো, মানুষের সেবার জন্য বেরিয়ে যাও’ এই প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা নবীন শিক্ষার্থীদের ফুলদিয়ে বরণ করে নেয়। এর আগে সকাল নয়টার দিকে কলেজ শিক্ষক, চিকিৎসক ও শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন পোষকে কলেজ চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও আনন্দ র‌্যালি বের করেন। পরে কলেজের হল রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নবীনদের শপথ বাক্য পাঠ করান কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডা. গিয়াস উদ্দীন। আলোচনা সভায় অধ্যক্ষের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএমএর সভাপতি ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু, জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ লিটু, জেলা সিভিল সার্জন ডা. দিলীপ কুমার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনছার উদ্দিন। এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মেডিকেল কলেজের ইএনটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আখতারুজ্জামান, কলেজের সাবেক অধ্যাপক ডা. এমএ শামসুল আরেফিন, ডা. শেখ ছাইদুল হক, সহযোগী অধ্যাপক ডা. গোলাম ফারুক, আবু হাসনাত মোঃ আহসান হাবিব, ডা. সুদেশ রক্ষিত, ডা. ইলা মন্ডল, ডা. অজয় কুমার সরকার, ডা. জয়ন্ত কুমার পোদ্দার, সহকারী অধ্যাপক ডা. আমিনুর রহমান, ডা. সৈয়দা পারভীন আক্তার, ডা. শরিফুল আলম খান, ডা. নজরুল ইসলাম, ডা. প্রকাশ চন্দ্র মজুমদার, ডা. মনিকা রানী মোহন্ত প্রমুখ। আলোচনা শেষে দ্বিতীয় পর্বে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। পরে মনোজ্ঞ সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে শেষ হয় অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কলেজের অর্থপেডিক্স বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. এএইচএম আব্দুর রউফ ও ও গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রবিউল ইসলাম।

শেয়ার