অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠা ও সততার সাথে পালন করতে চান প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য

মোতাহার হোসেন ও ইউনুচ আলী, মণিরামপুর॥ যশোর-৫, মণিরামপুর আসন থেকে টানা দ্বিতীয়বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য ও এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব সুচারু, দক্ষতা ও সততার সাথে পালনে উপজেলাবাসির দোয়া সমর্থন ও সহযোগীতা প্রয়োজন।
বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যকে মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ এক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এই গণসংবর্ধনা সভায় সংবর্ধিত প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
উপজেলা আ’লীগের সভাপতি পৌর মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি আরো বলেন,‘ গ্রাম হবে শহর’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দেশের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি আনয়নে ভূমিকা রাখতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তার উপর যে আস্থা রেখেছেন তা বাস্তবায়নে শরীরের শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে সেই গুরু দায়িত্ব পালন করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা উপজেলাবাসিকে প্রতিমন্ত্রী উপহার দিয়ে যে আস্থা রেখেছেন এজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, কাজের মাধ্যমে জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থার প্রতিফলন ঘটাতে চান। এসময় কোন দুর্নীতি ও অনিয়মকে প্রশয় না দেয়ারও ঘোষণা দেন তিনি।
উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন ও তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা সন্দীপ ঘোষের পরিচালনায় সংবর্ধিত প্রধান অতিথি বলেন, দেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে সামিল করতে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেয়া পদক্ষেপ বাস্তায়ন করতে সকলকে দল-মতের উর্দ্ধে থেকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে পারলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে দেশ মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরকে ছাড়িয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


উপজেলা আ’লীগের সভাপতি পৌর মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসানের স্বাগত বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে শুরু হওয়া সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রতিমন্ত্রীর সহধর্মিনী যশোর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তন্দ্রা ভট্টাচার্য্য, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা এমএম নজরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) জয়দেব নন্দী, জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনছার উদ্দীন। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা জিএম মজিদ, অ্যাড. বশির আহম্মেদ খান, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা খানম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমজাদ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে গাজী মোহাম্মদ, মনিরুজ্জামান মনি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে থেকে ঢাকুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এরশাদ আলী সরদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক উত্তম চক্রবর্তী বাচ্চু, যুগ্ম আহবায়ক মনিরুজ্জামান মিল্টন, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মুরাদুজ্জামান মুরাদ, যুগ্ম আহবায়ক ফজলুর রহমানসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদক, দলীয় নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ-সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ। এরআগে সংবর্ধিত প্রধান অতিথিকে উপজেলা-পৌর আওয়ামী লীগ, মহাজোটের শরিক দল, মণিরামপুর প্রেসক্লাব, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাজার ব্যবসায়ী সমিতি, সামজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক লোকসমাগম ঘটে। জনতার উপস্থিতিতে পৌর সভার মাঠ ছাপিয়ে যায়। মাঠে জায়গার সংকুলন না হওয়ায় জনতা যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কসহ আশে-পাশের ভবনে দাঁড়িয়ে সংবর্ধিত প্রধান অতিথির বক্তব্য শুনেন। এসময় আইনশৃংখলা বাহিনীকে জনতার ভীড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয়।

SHARE