তালার প্রসাদপুর গ্রামে একই পরিবারের ৫জনকে হত্যার চেষ্টা

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি॥ তালার প্রসাদপুর গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একই পরিবারের নারী ও পুরুষ সহ ৫সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে দূর্বৃত্ত প্রতিপক্ষরা। এতে গুরুতর আহতরা এখনও তালা ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহ বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসাধিন রয়েছে। এদিকে হামলাকারী দূর্বৃত্তদের অব্যাহত হুমকি ও সন্ত্রাসী মহড়ার কারনে আইনগত সহযোগীতা এবং যথাযথ চিকিৎসা নিতে পারছেনা ভুক্তভোগীরা। এতে করে আহতদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়া সহ জমি বেদখল হবার আশংকায় রয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় পরিবারটি। প্রসাদপুর গ্রামের রহমত বিশ্বাসের ছেলে লিয়াকত বিশ্বাস জানান, পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে প্রসাদপুর মৌজার সাবেক ৩১৯ দাগের বাগান বাড়ির জমিতে নার্সারি তৈরি করে দীর্ঘ বছর ধরে ভোগ দখল করে আসছে তাদের পরিবার। কিন্তু পাশ্ববর্তী মৃত ইব্রাহিম বিশ্বাসের ছেলে ফারুক বিশ্বাস ও মাসুদ বিশ্বাস গং ওই জমি জোর দখলের জন্য অপচেষ্টা শুরু করে। এতে ব্যর্থ হয়ে ফারুক গং ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের দিয়ে বিভিন্ন সময় বর্বর হামলা চালিয়ে ভাংচুর, লুটপাট, চুরি ও হত্যার চেষ্টা সহ নানাবিধ ক্ষয়-ক্ষতি করে জমি দখলের চেষ্টা চালায়। এমন পৃথক সময়ের দুটি ঘটনায় ইতোপূর্বে মাসুদ বিশ্বাস ও ফারুক বিশ্বাস গংদের বিরুদ্ধে তালা থানায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়, যা এখনও চলমান রয়েছে। এছাড়া জমি নিয়ে এই হামলা ও বিরোধের বিষয়ে তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার ও স্থানীয় খলিলনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান রাজু বিভিন্ন সময় সালিস করে দিলেও মাসুদ বিশ্বাস গং তা অমান্য করে। এমতাবস্থায় বিজ্ঞ আদালতে তাদের বিরুদ্ধে ১৪৫ ধারার একটি মামলা দায়ের করা হলেও মাসুদ বিশ্বাস ও ফারুক বিশ্বাস গং আাদালতকেও অবমাননা করে জমি জোর দখল চেষ্টা চালিয়ে যায়। লিয়াকত বিশ্বাস আরো জানান, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে খলিলনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ঐ জমির দখল ও মালিকানা নিরুপনের জন্য তদন্তে গেলে তাঁকে বাঁধা দেয় দূর্বৃত্ত ফারুক বিশ্বাস গং। এছাড়া বিজ্ঞ আদালতে ১৪৫ ধারার মামলা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে মাসুদ বিশ্বাস গং তদন্তের দিন হামলা চালিয়ে হাত ভেঙ্গে দেওয়া সহ কয়েকজনকে আহত করে। এসকল সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের ইতিহাস সহ জমির দখল ও প্রকৃত মালিকানার বিষয়ে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা তাঁর তদন্ত রিপোর্টে যথাযথ উল্লেখ করেছেন।
লিয়াকত বিশ্বাস বলেন, ফারুক বিশ্বাস ও মাসুদ বিশ্বাস গং গত ৩ জানুয়ারী বিকালে পরিকল্পিত ভাবে জোর দখলের জন্য জমিতে হামলা চালায়। এসময় তারা নার্সারির ৫শতাধিক মেহগনী গাছের চারা সহ অন্যন্যা গাছের চারা কেটে সাবাড় করে। তাদের এই তান্ডবে বাঁধা দিতে আসলে ফারুক ও মাসুদ গং লিয়াকত বিশ্বাস’রর বৃদ্ধ মাতা নবিজান বেগম (৫৫) এবং বোন সালেহা খাতুন (১৯) কে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় তাদের উদ্ধার করতে আসলে দূর্বৃত্তরা গোফুর বিশ্বাস, সবুর বিশ্বাস ও হায়দার আলী বিশ্বাসকেও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। আহতদের পরে উদ্ধার করে তালা হাসপাতালে আনলে এখান থেকে তৎক্ষনাৎ উন্নত চিকিৎসার জন্য নবিজান বেগম ও সালেহা খাতুনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। এঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে তালা থানায় লিয়াকত বিশ্বাসের স্ত্রী তানিয়া বেগম একটি এজাহার দাখিল করেছেন। এদিকে, ফারুক বিশ্বাস ও মাসুদ বিশ্বাস সহ তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতিনিয়ত হুমকিতে আহতরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও আইনগত সহযোগীতা নিতে পারছেনা বলে ভুক্তভোগী লিয়াকত বিশ্বাস অভিযোগ করেছেন।

শেয়ার