মিশরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ৪০ সন্দেহভাজন জঙ্গি নিহত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মিশরের উত্তর সিনাই ও গিজায় একসঙ্গে তিনটি পৃথক ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনী ৪০ সন্দেহভাজন জঙ্গিকে হত্যা করেছে। শনিবার এক বিবৃতিতে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় একথা জানিয়েছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।
গিজায় ভিয়েতনামি পর্যটকদের বহনকারী একটি বাসে প্রাণঘাতী বোমা হামলার একদিন পর এসব অভিযান চালানো হয়।
নিহত এই সন্দেহভাজন জঙ্গিদের সঙ্গে শুক্রবারের ওই হামলার কোনো যোগ ছিল কি না তা জানায়নি মন্ত্রণালয়টি। শুধু বলেছে, তাদের বাহিনীগুলো গিজার একটি গোপন জঙ্গি অস্তানায় অভিযান চলানোকালে ৩০ জনকে হত্যা করেছে। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও পর্যটন শিল্পে ধারাবাহিক হামলার লক্ষ্যে ‘সন্ত্রাসীরা’ সেখানে বসে পরিকল্পনা করছিল বলে জানিয়েছে তারা।
এর পাশাপাশি উত্তর সিনাইতে অভিযান চালিয়ে ১০ সন্দেহভাজন জঙ্গিকে হত্যা করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। উত্তর সিনাইতে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নেতৃত্বে চলা একটি বিদ্রোহ মোকাবিলা করছে মিশর। রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এমইএনএ জানিয়েছে, সন্দেহভাজনরা বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছেন।
সন্দেহভাজনদের পরিচয় অথবা অভিযান চলাকালে নিরাপত্তা বাহিনীগুলোর কেউ হতাহত হয়েছে কি না বিবৃতিতে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি মন্ত্রণালয়টি। তবে তিনটি অভিযান একই সময় চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে।
মন্ত্রণালয়ের প্রকাশ করা ছবিতে নিহতদের মুখ ঢাকা রক্তাক্ত মৃতদেহ ও পাশে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল ও শটগান পড়ে থাকতে দেখা গেছে।
শুক্রবার মিশরের বিখ্যাত গিজা পিরামিডের প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে ভিয়েতনামি পর্যটকদের বহনকারী একটি ট্যুর বাস রাস্তার পাশে পেতে রাখা বোমার বিস্ফোরণে ক্ষতবিক্ষত হয়। এতে তিন ভিয়েতনামি পর্যটক ও এক মিশরীয় গাইড নিহত ও আরও অন্তত ১০ জন আহত হন।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকেই জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে বড় ধরনের অভিযানে নেমেছিল মিশরীয় সামরিক বাহিনী। সিনাই উপদ্বীপের পাশাপাশি দক্ষিণাঞ্চল ও লিবিয়ার সীমান্ত লক্ষ্য করে অভিযানটি শুরু করা হয়েছিল।

শেয়ার