ভোটের মাঠে শৈত্যপ্রবাহ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ জাতীয় নির্বাচনের উত্তেজনার মধ্যেই বাংলাদেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বয়ে যাচ্ছে এবারের শীত মৌসুমের প্রথম শৈত্যপ্রবাহ।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ এবং খুলনা ও বরিশাল অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে চলা মৃদু থেকে মাঝারি মাত্রার এই শৈত্যপ্রবাহের কারণে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে এসেছে ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।

রোববার দেশের ২৯৯ আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে।দেশের পশ্চিমাঞ্চলে তখন শীতের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার সকালে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, টাঙ্গাইল, রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলসহ রংপুর ও খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে বয়ে চলা মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে।

আকাশ থাকতে পারে আংশিক মেঘলা, তবে সারাদেশের শুষ্ক আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে।

মাঝ পৌষে যেমন হয়, শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি মাত্রার কুয়াশাও থাকতে পারে।

বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে, ৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৫ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে পরের ৭২ ঘণ্টায় তাপমাত্রা আরও কমতে পারে বলে আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, এখন পর্যন্ত আবাহওয়ার যে মতিগতি তারা দেখছেন, তাতে ৩০ ডিসেম্বর শৈত্যপ্রবাহের মধ্যেই মানুষকে ভোটকেন্দ্রে যেতে হবে।

ডিসেম্বর মাসের দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে বলা ছিল, মাসের শেষার্ধে উত্তর, উত্তর পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে ১ থেকে ২টি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস)/মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

শেয়ার