সিইসির সঙ্গে ‘মস্তানি’ করে এসেছেন কামাল: এইচ টি ইমাম

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ভোটের চার দিন আগে কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সিইসির সঙ্গে ‘অসৌজন্যমূলক আচরণের’ সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম।
মঙ্গলবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে দলের মিডিয়া উপ-কমিটির এক সভা শেষে এদিন নির্বাচন ভবনের ঘটনা সাংবাদিকদের বলেন তিনি।
কামালের নেতৃত্বে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতারা দুপুরে নির্বাচন ভবনে যাওয়ার পর সিইসির সভাকক্ষে বৈঠকে বসেন। দেড় ঘণ্টা বৈঠকের পর আলোচনা শেষ না করেই বেরিয়ে আসেন তারা। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সিইসি তাদের কোনো অভিযোগ কানে তোলেননি।
বৈঠকে ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের সঙ্গে থাকা জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, সিইসি ও কামাল হোসেনের সঙ্গে ‘উচ্চবাচ্য’ হয়।
বিকালে এইচ টি ইমামকে পেয়ে সাংবাদিকদের সেনা মোতায়েন নিয়ে কামালের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি দুপুরে নির্বাচন ভবনে সংঘটিত ঘটনাটি তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, “আজকে যে গেছিলেন, আমি তার থেকে কিছু কিছু তথ্য পেয়েছি। বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের খুব শক্তিশালী দল একটি গিয়েছিল। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর থেকে মঈন খান, নজরুল ইসলাম সবাই গিয়েছিলেন।
“সভা তারা বয়কট করেননি, এই তথ্যটাই দিতে চাই। বিষয়টা হইছে এই, কথা বলতে বলতে অভিযোগ করতে করতে এক পর্যায়ে ড. কামাল হোসেন ক্ষেপে গিয়ে নারায়ণগঞ্জের কোনো এক সাব ইন্সপেক্টর, নিম্নপদস্থ কর্মকর্তার সম্পর্কে যে ভাষায় কথা বলেছেন, তাকে বলেছেন ‘জানোয়ার’!
“সিইসি তাৎক্ষণিকভাবে এটির প্রতিবাদ করেছেন। বলেছেন, আপনি (কামাল) এই শব্দ কেন ব্যবহার করলেন, এরকমভাবে। আপনার মুখে শোভা পায় না।
“এরপরে যেটি ঘটেছে, ড. কামাল হোসেন টেবিল জোরে জোরে চাপড়িয়েছেন। আর খামোশের গল্প তো আছেই। তখন সিইসি এবং অন্যান্যরা বলেছেন, আমরা অপমানিত বোধ করছি, আপনারা না থাকলেই ভাল।”
“তারা বয়কট করেনি, তবে এটাও এক রকম মাস্তানি করেছে,” বলেন এইচ টি ইমাম।

শেয়ার