নৌকার বিজয় মানেই দেশের উন্নয়ন: শাহীন চাকলাদার

কামারুজ্জামান কামাল, ঝিকরগাছা ॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার বলেছেন, নৌকার বিজয় মানেই বাংলাদেশের উন্নয়ন। যতবার আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসেছে ততবারই দেশের উন্নয়ন হয়েছে। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসলে আমদানির নামে দেশের টাকা বিদেশে পাচার করে। তাই আগামী ৩০ ডিসেম্বর নৌকার বিজয়ের মধ্যে দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী করে সোনার বাংলা গড়ার পথে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, যশোর-২ আসনে জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন সৎ, যোগ্য ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পাঠিয়েছেন। বিজয়ের মাসে নৌকার প্রার্থী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তাই সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকার মাঝি মেজর জেনারেল (অব.) ডাঃ নাসির উদ্দিনকে বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। গতকাল বিকালে ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের মাটিকোমরা হাইস্কুল মাঠে যশোর-২ আসনের নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। হাজিরবাগ ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকা বিজয়ী না হলে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন ধূলিস্যাত হবে। তিনি বলেন, জামায়াতের গোপন তৎপরতা রুখে দিয়ে ভোট কেন্দ্রে নৌকার কর্মীদের সক্রিয় থেকে বিজয় অর্জন করতে হবে। বিশেষ অতিথি ও নৌকার প্রার্থী ডা. নাসির উদ্দিন বলেন, এ নৌকা শেখ হাসিনার, এ নৌকা বঙ্গবন্ধুর নৌকা। তাই নৌকার বিজয় আপনাদের বিজয়। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী রায়হান। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি একেএম খয়রাত হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল ও যুগ্ম সম্পাদক মনিরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমপি মনিরুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রেজাউল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা রোকেয়া পারভীন ডলি, পানিসারা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নওশের আলী, শাহীন সরদার, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরজাহান ইসলাম নিরা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি এস এম নিয়ামত উল্লাহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, জেলা ছাত্রলীগ নেতা তৌহিদুর রহমান, তসলিমুজ্জামান আকাশ, সালাউদ্দিন কবির পিয়াস, সাবিব আহম্মেদ অনি, ইয়াসির আরাফাত তরুন, ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রবীন নেতা আমজাদ হোসেন কলিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জহুরুল হক, সাবেক যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক শেখ নাছিমুল হাবিব শিপার, সাবেক প্রচার সম্পাদক প্রভাষক মোর্ত্তজা ইসলাম বাবু, শহিদুল ইসলাম, মাস্টার এনামুল কবীর, আবুল কাশেম, মাগুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক, হাজিরবাগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা আসাদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান বজলে, হাজিরবাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিন্টু, নির্বাসখোলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন, গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান আমিন, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হেলাল উদ্দিন, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল খালেক, প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক (১) ছেলিমুল হক সালাম, জেলা যুবলীগ নেতা আজহার আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম বাপ্পী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য শামীম রেজা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ও যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য সেলিম রেজা, জাফিরুল হক, এমামুল হাবিব জগলু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এহসানুল হক শিপলু, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম বাপ্পী, সাধারণ সম্পাদক তৌফিক আলম কৌশিক, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শামসুর রহমান, উপজেলা শ্রমিকলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সর্দার, যুবলীগ নেতা মাজাহারুল ইসলাম লাবু, যুবলীগ নেতা শাওন রেজা খোকা, আরিফুজ্জামান ছন্টু, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।