লোহাগড়ায় প্রকাশ্যে ৩ বাড়িতে হামলা লুটপাট ও ভাংচুর

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি॥ নড়াইলের লোহাগড়ায় ইউপি নির্বাচন নিয়ে গ্রাম্য দলাদলির জের ধরে তিনটি বাড়ি ভাংচুর লুটপাট মহিলা ও শিশুকে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার বিকালে কোটাকোল ইউপির রায়পাশা গ্রামে।
গ্রামবাসী ও ভূক্তভোগীদের সূত্রে জানা গেছে, কোটাকোল ইউপির নির্বাচন নিয়ে গ্রাম্য দলাদলির বিরোধের কারণে রোববার বিকাল ৫টার দিকে রায়পাশা গ্রামের আলিম খান, মশিয়ার বিশ্বাস ও ইনামুল ফকিরের বাড়িতে প্রতিপক্ষরা হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাটসহ দুজন মহিলা ও এক শিশুকে মারপিট করেছে। মারপিটে আহতরা হলেন আলিম খানের স্ত্রী মাহফুজা বেগম (৩০), মশিয়ার বিশ্বাসের স্ত্রী বিনা বেগম (৩২) ও তার শিশু কণ্যা মেঘলা (৩)। আহতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেন, দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে হঠাৎ করগাতি গ্রামের মিসকাত খান, মাকলু খান, এসতে খান, মনি ফকির, গোলাম রসুল খান, মরফু ফকির, মানিক, হাসান, লাবু, ডাবলু ফকির, সাজ্জাদ, কালাম খান, খলিল খান, ইন্দা, নুর ইসলাম খানসহ ১৫/২০ জনের একটি দল হামলা চালিয়ে তাদের বাড়িঘর ভাংচুরসহ নগদ টাকা, ভ্যানগাড়ি, স্বর্ণালংকার ২০/২৫ মন ধান, চাল, ৪টি ছাগল, আসবাবপত্র, কাপড়-চোপড় লুট করে নিয়ে যায়। বাধা দিলে তারা মহিলা ও শিশুকে মারপিট করে। ওই তিন পরিবারের প্রায় ৭ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্তরা ও গ্রামবাসী আরও অভিযোগ করেন, হামলাকারীরা সবাই বিএনপি-জামায়াতের সমর্থক ও কর্মী। তারা দীর্ঘদিন ধরেই এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।
লোহাগড়া থানার এস,আই নুরুস সালাম সিদ্দিকী ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সোমবার জানান, ইউনিয়ন নির্বাচনের জের ধরে এঘটনা ঘটেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার