যশোরে সচিবের উপর ইউপি সদস্যের ক্যাডাদের হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ অনৈতিক সুবিধা না পেয়ে যশোরের ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের উপর ইউপি সদস্য জহুর আলী মোল্যার সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদ অফিস কক্ষেই তিনি হামলার শিকার হন।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ফতেপুরের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জহুর আলী চাঁনপাড়া গ্রামের আনসার আলীর মেয়ে শামসুর নাহার শিল্পীর কাছ থেকে সরকারি টিউবওয়েল দেওয়ার নাম করে দুই হাজার ৫০০ টাকা নেন। টাকা লেনদেনের সময় সচিব উপস্থিত ছিলেন। প্রায় আট মাস আগে এই টাকা নিলেও ইউপি মেম্বর এখনো তাকে টিউবওয়েল ব্যবস্থা করে দিতে পারেননি। এজন্য প্রতিনিয়ত ভুক্তভোগী শিল্পী ইউনিয়ন পরিষদে আসেন। সোমবার সকালে এসে তিনি মেম্বরকে না পেয়ে প্রকাশ্যে নানা কথা বলেন। এ খবর পেয়ে মেম্বর জহুর আলী ভাই বাদশার নেতৃত্বে মোটরসাইকেলে করে ৩০ থেকে ৪০ জন পরিষদে আসেন। তারা এসেই সচিবের উপর হামলা করেন। তার অফিস কক্ষ ভাঙচুর করেন। পরে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। অবশ্য হামলাকারীদের অভিযোগ সচিবের কারণেই শিল্পী টিউবওয়েল পাচ্ছেন না।
হামলার শিকার সচিব মুজিবুর রহমান বলেন, ‘আমি কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওরা আমার উপর হামলা করে। মেম্বর টাকা নিয়েছেন। কিন্তু টিউবওয়েল দিতে পারছেন না। এটা তো আমার দোষ না।’
তবে পরিষদে অপ্রীতিকর ঘটনার কথা স্বীকার করলেও কারো কাছ থেকে টিউবওয়েল দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়া কথা অস্বীকার করেছেন ইউপি সদস্য জহুর আলী মোল্যা। তিনি বলেন, ‘একটি কাগজ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। এজন্য কথা কাটাকাটি হয়েছে। তবে সব সমাধান হয়ে গেছে।’
যোগাযোগ করা হলে চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনার পরে আমি গিয়েছিলাম। আমি মিটমাট করে দিয়েছি। টিউবওয়েল দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার বিয়ষটি আমার আগে জানা ছিলো না। বিষয়টি সমাধান হয়ে যাবে।’

শেয়ার