চোরাই মোটরসাইকেল বিক্রির টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব ক্ষোভে একজনের তথ্য ফাঁস ॥ ৬ চোর শ্রীঘরে

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর ॥ ‘দুর্গা পূজার সময় মোটরসাইকেল চুরি করি। চোরাই মোটরসাইকেল বিক্রির ভাগ না আজও মেলেনি। আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে চুরির সাথে জড়িত সাকিব হোসেন অন্যদের নাম জানিয়ে দেয় যশোরের মণিরামপুরের নেহালপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুস সা’দাতসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে। সাকিব উপজেলার পাঁচাকড়ি গ্রামের ইলিয়াস ফকিরের ছেলে। পরে তার দেয়া তথ্যমতে চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধারসহ চোর সিন্ডিকেটের আরো ৬ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এরা সবাই অল্প বয়সী। মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
এরা হলো উপজেলার পাঁচাকড়ি গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে শামীম হোসে (২৬), মিজানুর রহমান সরদারের ছেলে রনি সরদার (১৭), অভয়নগরের বারান্দি গ্রামের সাহিদ বিশ্বাসের ছেলে জিহাদ হোসেন (২১), মণিরামপুর উপজেলার বালিধা গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমান খোকনের ছেলে হিমেল মোল্যা (১৮), কামরুল গাজীর ছেলে রাসেল কবির (১৯) ও আব্দুল্লাহ রাকিব (২০)।
ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুস সা’দত জানান, কিছুদিন আগে সাকিব নাগরিক সনদ নিতে পরিষদে আসে। কিন্তু সাকিব মাদকাসক্ত হওয়ায় তিনি দিতে রাজি হননি। এক পর্যায় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে আর মাদক গ্রহন না করার শপথ নিলে তাকে নাগরিক সনদ দেয়া হয়। হঠাৎ করে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাকিব এসে জানায়, ‘সেসহ আরো কয়েকজন মিলে দূর্গা পূজার সময় একটি মোটরসাইকেল চুরি করে। যা শামিম কাছে রয়েছে।’
এরপর সাকিবের দেয়া তথ্যমতে ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত ওই ৬ যুবককে আটক করা হয়। পরে নওয়াপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) রকিবুজ্জামান সাকিবসহ ৭ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।
ওসি (তদন্ত) রকিবুজ্জামান জানান, দুর্গা পূজার সপ্তমীতে অভয়নগর উপজেলার ডুমুরতলা গ্রামের মৃত বিজয় বৈরাগীর ছেলে কৃষ্ণ বৈরাগীর একটি এ্যাপাচি মোটরসাইকেল তার মাছের ঘের পাড় থেকে চুরি হয়। পরদিন তিনি থানায় একটি জিডি করেন। জিডির বুনিয়াদে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

SHARE