ঘাতক চালকের ফাঁসির দাবিতে লাশের কফিন ও গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ

মাগুরায় বাসচাপায় মায়ের পর ছেলের মৃত্যু

মাগুরা প্রতিনিধি ॥ বাস চাপায় মা-ছেলের মৃত্যুর ঘটনায় ঘাতক চালকের ফাঁসির দাবিতে মাগুরা সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নের বিক্ষুব্ধ জনতা মাগুরা-নড়াইল প্রধান সড়ক বন্ধ করে বিক্ষোভ করেছে। শনিবার সকাল থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়ে চলে বিকেলে ৫টা পর্যন্ত। এ সময় তারা রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে ফাঁসির দাবি জানিয়ে স্লোগান দেয়। পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিকাল ৫ টার পর এলাকাবাসী অবরোধ তুলে নেয়।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নের ধলহরা গ্রামের রিক্সাচালক বিপুল হোসেন তার স্ত্রী আলেয়া বেগম এবং ছেলে আল আমিনকে নিজ রিক্সায় তুলে গ্রামে ফিরছিলেন। পাজাখোলা নামক স্থানে একটি দ্রুতগামী বাস তাদের রিক্সাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই বিপুলের স্ত্রী মারা যান। গুরুতর আহত হয় তার ছেলে আল আমিন। তাকে প্রথমে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় কিন্তু সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাতেই ঢাকা মেডিকেলে কলেজে রেফার্ড করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে তার মৃত্যু হয়।
আল আমিনের লাশ ঢাকা থেকে মাগুরায় নিজ গ্রামে পৌঁছালে এলাকাবাসী ঘাতক চালককে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মাগুরা-নড়াইল প্রধান সড়কে কফিন ও লাশ ফেলে বিক্ষোভ করে এবং যানচলাচল বন্ধ করে দেয়। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের আশ্বস্ত করে ঘাতক বাস চালককে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। তাকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে তবেই বিক্ষুব্ধরা অবরোধ তুলে নেয়।

SHARE