ভারত-বাংলাদেশ দু’দেশের জনগণের কল্যাণে এক সাথে কাজ করবে

মণিরামপুরে মন্দির উদ্বোধনকালে ভারতীয় হাইকমিশনার

মোতাহার হোসেন, মণিরামপুর ॥ বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের জনগণের কল্যাণে এক সাথে কাজ করবে। বাংলাদেশের আর্থ সামজিক উন্নয়নে ভারত অভিভূত। ২০৪১ সালে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে সকলকে এক সাথে কাজ করতে হবে।
রোববার সন্ধ্যায় ভারত সরকারের আর্থিক সহায়তায় যশোরের মণিরামপুরের খেদাপাড়া বৈদ্যনাথ ধাম মন্দিরের নতুন ভবন উদ্বোধনকালে মন্দির কমিটি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ মন্দির উন্নয়নে ভারত সরকার ৩৫ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছে। যার ১৫ লাখ টাকার চেক স্থানীয় এমপি স্বপন ভট্টাচার্য্য’র হাতে তুলে দেন।
মন্দির কমিটির সভাপতি সুব্রত চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি আরো বলেন, রামপালে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী পাওয়ার প্লান্ট চালু হলে শিল্পোন্নয়নসহ এ অঞ্চলের মানুষের নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। এসময় তিনি ৫০ বছর পর কলকাতার সাথে বাংলাদেশের রেলযোগাযোগসহ বাংলাদেশের উন্নয়নে ভারত সরকারের অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, খুলনার মংলা রেল যোগাযোগসহ মংলা বন্দর উন্নয়নে ভারত সরকার সহায়তা প্রদান করছে। ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত বরিশাল এক্সপ্রেসের মাধ্যমে কলকাতার সাথে রেল যোগাযোগ ছিল। এ যোগাযোগ পুণঃস্থাপনে ইতোমধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যৌথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। ভারতীয় দূতাবাস বাংলাদেশের অনেকগুলো সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিয়ে ৬৪ হাজার কোটি টাকা অনুদান দিয়েছে। এছাড়া গত তিন বছরে ৫০ টির বেশি প্রকল্পে ১১৫ কোটি টাকা বরাদ্দসহ সারাদেশে সংখ্যালঘু উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় তা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এসময় তিনি চরমপন্থি নির্মূলে সাফল্য অর্জন করায় ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান। মানুষে মানুষে যোগাযোগ স্থাপন ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নের জন্য চলতি বছর থেকে খুলনায় ডেপুটি হাইকমিশনের কার্যালয় খোলা হয়েছে।


সজিব কুশারির পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন স্থানীয় এমপি স্বপন ভট্টাচার্য্য, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, জেলা প্রশাসক আব্দুল আউয়াল, যশোর রামকৃষ্ণ আশ্রম ও মঠের অধ্যক্ষ জ্ঞান প্রকাশানন্দ, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন, জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি তন্দ্রা ভট্টাচার্য্য। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনাস্থ ভারতীয় ডেপুটি হাইকমিশনার রাজেশ রায়েনা, ভারতীয় হাইকমিশনের প্রধান সচিব (রাজনৈতিক-২) রাজেশ উইকে, প্রধান সচিব (রাজনৈতিক-১) নবনীতা চক্রবর্তী, দ্বিতীয় সচিব বানিজ্য শিশির কোঠারী। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার