সন্ত্রাসীর ঘরবাড়ী দখল করায় শ্যামনগর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি॥ শ্যামনগর উপজেলা সদরের বাদঘাটা গ্রামে দখলকারীদের কবল থেকে সম্পত্তি ফিরে পেতে গতকাল সকাল ১১টায় শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন শিক্ষক আঃ বারী। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার পৈত্রিক ভিটা নিজ অর্থায়নে পাকা প্রাচীর দিয়ে ২ টা পাকা রুম করে বসবাস করছি।
আমার ভাই আঃ সবুর তরফদার জামায়াতের সক্রিয় নেতা ও রোকন। তিনি আমার প্রতি হিংসার বশবর্তী হয়ে ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে এলাকার চিহ্নিত বিএনপি নেতা আঃ সালাম, আবুল কালাম, নূর ইসলাম, আঃ সাত্তার, সুলতানপুর গ্রামের মোঃ জাবের হোসেন ও তাদের সহযোগীদের দিয়ে আমার ঘরবাড়ি ভাংচুর করে। এঘটনায় আমি সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস.এম জগলুল হায়দার বরাবর অভিযোগ করি। এমপি মহোদয় সাতক্ষীরার ২ জন সিনিয়র উকিলের নিকট দুই পক্ষের কাগজ পত্র দেখে মতামত প্রকাশের জন্য সুপারিশ করেন। বিজ্ঞ এ্যাডভোকেট আলাউদ্দিন ও উকিল বারের সভাপতি এ্যাডভোকেট আবুল হোসেন পৃথক পৃথক ভাবে কাগজপত্র দেখে আমার প্রতি রায় প্রদান করেন। এঘটনার কিছুদিন পূর্বে বিবাদীগণ আমার ঘরবাড়ি দখল করার চেষ্টায় ভাংচুর করতে থাকে। আমার বৃদ্ধা মা ও বাবা বাঁধা দেওয়ায় তাদেরকে ও মারপিট করে এবং হুমকি দিয়ে চলে যায়। এঘটনায় আমি পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ করি। এরপর গত ১০ আগস্ট বেলা ১ টার সময় তারা ফের দলবদ্ধ হয়ে আমার ভরবাড়ি ভাংচুর করে। আমার স্ত্রী ও কন্যা তাদেরকে বাধা দিতে গেলে তাদেরকে ও মারপিট করে এবং আমার স্ত্রীর কাছে থাকা গহনা ছিনিয়ে নেয়। এসময়ে আমার ছোট দুই ভাই আঃ রাজ্জাক ও আঃ হাই বাঁধা দেওয়ায় দখলকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের ঘাড়ে ও মাথায় কোপ মারে। এখনও তারা শ্যামনগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
তিনি বলেন ঐ সন্ত্রাসীরা এখনও আমার ঘরবাড়ি দখল করে আছে। এঘটনায় আমি বাদী হয়ে দখলকারীদের বিরুদ্ধে শ্যামনগর থানায় এজাহার দাখিল করি। ঘটনা তদন্ত পূর্বক থানায় মামলা হয়। মামলা নং ১০, তারিখ ১০ আগষ্ট। এসকল ঘটনা থেকে পরিত্রাণ এবং সুষ্ঠ বিচার পেতে তিনি প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

SHARE