কালীগঞ্জে দুই আলমসাধু বোঝাই সরকারি চাল এখন থানায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালীগঞ্জ ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বিক্রির উদ্দেশ্যে আনা ১ হাজার ৪৪৪ কেজি ভিজিএফ কার্ডের চাল জব্দ করেছে থানা পুলিশ। সোমবার বিকেলে শহরের নলডাঙ্গা রোড থেকে দুটি আলমসাধু বোঝাই ৩৪ বস্তা চালসহ চালক আনোয়ার হোসেন ও সাইদুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ থানায় নিয়ে গেছে। জব্দকৃত চাল নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ভিজিএফ কার্ডধারীদের বলে এলাকাবাসী জানালেও পুলিশ তা অস্বীকার করেছে। তারা বলছে, চালগুলো কোথা থেকে কিভাবে আসলো তা তদন্তের পর জানা যাবে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ঝিনাইদহ-৪ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও কালীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল আজীম আনার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তম কুমার রায়, থানার ওসি মিজানুর রহমান খান।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার বিকেলে নলডাঙ্গাবাজার থেকে দুই আলমসাধুতে ৩৪ বস্তা চাল নিয়ে কালীগঞ্জ নলডাঙ্গা রোডে রেখে দেয়া হয়। আলমসাধুর উপর চাউলের বস্তার গায়ে খাদ্য অধিদপ্তরের সিল দেখে তা সরকারি চাল বলে এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তারা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে চালসহ আলমসাধু জব্দ করে। এ সময় দু’জনক চালককেও থানায় নেয়া হয়।
এ ব্যাপারে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার ইউনিয়নে ৮৫২ জন ভিজিএফ কার্ডধারীর জন্য ৪২ টন চাউল বরাদ্দ দেয়া হয়। সোমবার ট্যাগ অফিসারের উপস্থিতিতে ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়। কালীগঞ্জে জব্দ হওয়া চাল কার তা আমার জানা নেই। তবে প্রতিপক্ষরা তাকে ফাঁসানোর জন্য মিথ্যা রটনা করতে পারে বলে তিনি সন্দেহ করছেন।
কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান খান বলেন, সরকারি চাল সন্দেহে ১ হাজার ৪৪৪ কেজি চাউল জব্দ করা হয়েছে। চালগুলো কোথা থেকে এসেছে এবং এর নেপথ্যে কে আছে তা এখনো জানা যায়নি। বিষয়টির গভীর তদন্ত প্রয়োজন। তদন্তে শেষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।