মণিরামপুরে এক সন্তানের জননীর মৃত্যু নিয়ে ধু¤্রজাল *মৃতের স্বজনদের দাবি পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে

মোতাহার হোসেন, ॥ মণিরামপুরে এক সন্তানের জননী মরিয়ম খাতুন (১৮) নামে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে মুখে বিষ ঢেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত মরিয়ম উপজেলার রামনগর গ্রামের শাহিনুর রহমানের স্ত্রী। এই মৃত্যু নিয়ে ইতিমধ্যে ধু¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। মরিয়মের স্বজনদের দাবি তাকে (মরিয়ম) পিটিয়ে মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তবে শ্বশুর পরিবারের দাবি, কীটনাশকপানে মরিয়ম আত্মহত্যা করেছে।
মরিয়মের দাদা শওকত আলী জানান, বছর পাঁচেক আগে উপজেলার রামনগর গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে শাহিনুর রহমান শাহিনের সাথে মরিয়মের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শাহিনুর বিভিন্ন অজুহাতে একাধিকবার আমাদের কাছ থেকে টাকা নেয়। তাছাড়া বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে তাকে আড়াই লাখ টাকা দেয়া হয়েছিল। কিছুদিন আগে শাহিনের ছোট ভাই মুহিতকে বিদেশ পাঠানোর জন্য শ্বশুরের কাছ থেকে আরো এক লাখ টাকা ধার নেয়। এছাড়া মরিয়মের পিতা রবিউল ইসলাম বিদেশ থাকায় টাকার জন্য চাপ দিতো শাহিনের ছোট ভাই তুহিন ও তার মা আনোয়ারা বেগম। এনিয়ে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকতো। একই সাথে মারপিটও করা হতো মরিয়মকে। ঘটনার দিন মঙ্গলবার বিকেলে পিতার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে ফেরার পর মরিয়মকে শাশুড়ি, স্বামী শাহিন ও দেবর তুহিন মিলে মারপিট করে এবং এক পর্যায় তার (মরিয়ম) মুখে বিষ ঢেলে দেয়। এরপর মরিয়মকে কেশবপুর উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাত সাড়ে ৭ টার দিকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর রাত ৯ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মরিয়মের মৃত্যু হয়। অপরদিকে মরিয়মের দেবর তুহিন হোসেন দাবি করেন, ভাই ও ভাবির মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়েছিল। এরই জের ধরে ভাবি (মরিয়ম) বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।
যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ওসি আবুল বাশার জানান, এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

SHARE