যশোরের কৃষ্ণবাটির রানা হোসেন হত্যাকাণ্ড ।। শীর্ষ সন্ত্রাসী ম্যানসেলসহ অনেকে জড়িত বলে এক আসামির আদালতে জবানবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে রানা হোসেন হত্যাকান্ডে শীর্ষ সন্ত্রাসী ম্যানসেলসহ ১০/১৫ জন জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে আটক আব্দুল মালেক। ষষ্ঠীতলার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা জবার মেয়েকে অস্ত্রের মুখে অপহরণের পর বিয়ের করার কারণে পরিকল্পিতভাবে রানাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। মঙ্গলবার অতিরিক্তি চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মুহাম্মদ আকরাম হোসেন জবানবন্দি গ্রহণ শেষে মালেককে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। মালেক শহরের রেলগেট পশ্চিমপাড়ার মৃত তাইজেল ইসলামের ছেলে।
জবানবন্দিতে মালেক জানিয়েছেন, সদর উপজেলার কৃষ্ণবাটি গ্রামের জসিম উদ্দিনের বাড়ির ভাড়াটিয়া জামাল উদ্দিনের ছেলে রানা হোসেন। সে মালিকানাধীন একটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। ২৪ জানুয়ারি শহরের ষষ্ঠিতলার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা জবার দশম শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে চাঁদনী ওরফে সোহাগী খাতুনকে (১৬) অস্ত্র ঠেকিয়ে তুলে নিয়ে বিয়ে করে রানা। চাঁদনীকে নিয়ে সে বাঁকড়া এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতো। এদিকে চাঁদনীকে উদ্ধারের জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুজি করেও ব্যর্থ হয়। এরই মধ্যে ২৮ জানুয়ারি সোহাগীকে এলাকায় তার পিতার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় রানা। এতে রানার উপর চরমভাবে ক্ষিপ্ত হয় চাঁদনীর ভাই বাবু। সে কারণে রানাকে হন্যে হয়ে খুঁজতে থাকে বাবু। গত ২৯ জানুয়ারি দুপুরে সে বাজার করে ইজিবাইকে চড়ে বাসায় ফিরছিল রানা। পথিমধ্যে রেলক্রসিংয়ে পৌঁছানোর পর তাকে দেখে ফেলে বাবু এবং সাথে ছিল ম্যানসেল, সাগর ও রমজানসহ আরো অনেকে। এসময় বাবু ও ম্যানসেল, সাগর ও রমজানসহ ১০/১২জন তার ইজিবাইক থামিয়ে নামতে বলে। এরইমধ্যে রানাকে একটি রিক্সায় রেলগেট পশ্চিমপড়ায় নিয়ে তারা। সকলেই রানাকে ছুরিকাঘাত ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। স্থানীয়রা রানাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতলে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৩টার দিকে মারা যায়।
আটক মালেক ওই সময় বাবুদের সাথে ছিল বলে জবানবন্দিতে উল্লেখ করেছে। কিন্তু মালেক পরে জানতে পারে বাবুর বোনকে জোর করে বিয়ে করায় পরিকল্পিত ভাবে রানাকে হত্যা করা হয়েছে।
রানাকে হত্যার অভিযোগে ৩০ জানুয়ারি নিহতের মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন।
তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক হারুন অর রশিদ এ হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে বাড়ি থেকে মালেককে আটক করেন। এদিনই মালেকে আদালতে সোপর্দ করা হলে হত্যার সাথে জড়িত এবং অপর জড়িতদের নাম উল্লেখ করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।

শেয়ার