মেহেরপুরে হত্যা-ডাকাতির আসামির গুলিবিদ্ধ লাশ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মেহেরপুর শহরে ডাকাতি, হত্যাসহ বিভিন্ন মামলার এক আসামির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, ‘দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে’ খাদেমুল ইসলাম নামে ওই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তবে দুদিন আগে পুলিশ পরিচয়েই খাদেমুলকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার।

নিহত খাদেমুল (২৯) মেহেরপুর শহরের নতুন পোস্ট অফিস পাড়ার রেজাউল হকের ছেলে। তার নামে মেহেরপুর থানায় ডাকাতি, হত্যাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদ হাসান জানান।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, বুধবার ভোর ৪টার দিকে গুলির শব্দ শুনে পুলিশ শহরের ব্র্যাক কার্যালয়ের পেছনের মাঠে যায়। সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় খাদেমুলকে পাওয়ার পর মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
“ধারণা করা হচ্ছে, দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে গোলাগুলিতে খাদেমুল মারা গেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, হাতবোমা ও কয়েকটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।”

এদিকে খাদেমুলের স্ত্রী সুফিয়া খাতুন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, গত সোমবার পুলিশ পরিচয়ে খাদেমুলকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাকে দেখতে সদর থানায় গেলে পুলিশ দেখা করতে দেয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সদর থানার ওসি রবিউল আলম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “তাকে পুলিশ ধরেনি, তার কোনো আত্মীয় স্বজনও আমাদের এখানে আসেনি।”

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিন দিন আগে মেহেরপুর শহরের গোহাট সংলগ্ন একটি ভুট্টা ক্রয় কেন্দ্রে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় খাদেমুলের নামও আসে।

খাদেমুলের নিহত হওয়ার সঙ্গে ডাকাতির ওই ঘটনার যোগাযোগ থাকতে পারে বলে মনে করছেন এলাকাবাসীদের কেউ কেউ। তবে এ বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

শেয়ার