লাভের পাশাপাশি বাজারও তৈরি করতে হবে: ব্যবসায়ীদের প্রধানমন্ত্রী

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ব্যবসা করে লাভের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি ও বাজার তৈরির পদক্ষেপ নিতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সোমবার ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, “আপনাদের… শুধু নিজেরা আর্থিক স্বচ্ছলতা আনলে হবে না। সাথে সাথে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বাড়াতে হবে। আপনার উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করতে হলে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বাড়ানো একান্তভাবে প্রয়োজন।”
উৎপাদিত পণ্যের জন্য নতুন নতুন বাজার খুঁজে বের করতেও ব্যবসায়ীদের তাগিদ দেন শেখ হাসিনা।
“আমাদের আরও সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আমি মনে করি, আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে যারা জড়িত আমাদের নতুন নতুন পণ্য যেমন উৎপাদন করতে হবে, আমাদের এক্সপোর্ট বাস্কেটটাও বাড়াতে হবে।”
আরও কী কী পণ্য বাংলাদেশ রপ্তানি করতে পারে, বিশ্বের কোন দেশে বাংলাদেশের কোন পণ্যের নতুন বাজার আছে, সেখানে কতটা চাহিদাটা আছে- সেসব খুঁজে দেখার ওপর গুরুত্ব দেন সরকারপ্রধান।
সেই সঙ্গে পণ্যের মান ও সময়োপযোগিতার দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বাণিজ্য যাতে বৃদ্ধি পায়; সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে কবে।”
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সকালে উদ্বোধনী বক্তব্যের পর ফিতা কেটে মেলার উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা। পরে তিনি বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন।
বছরের প্রথম দিন থেকে শুরু হয়ে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বাণিজ্য মেলা চলবে। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা প্রবেশ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।
এবার মেলায় বিভিন্ন ক্যাটাগরির ৫৮৯টি প্যাভিলিয়ন ও স্টল রয়েছে। এর মধ্যে ১১২টি বড় ও ৭৭টি ছোট প্যাভিলিয়ন।
থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, সিঙ্গাপুর, মরিশাস এবং দক্ষিণ কোরিয়ার ৪৩টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে।
শিল্পের পাশাপাশি কৃষির ওপর গুরুত্ব আরোপের তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের অর্থনীতি কৃষি নির্ভর। একটা দেশকে উন্নত করতে হলে শিল্পায়নে যেতে হবে। কিন্তু কৃষিকে কোনোভাবে অবহেলা করা যাবে না। কারণ, কৃষিটা অত্যন্ত জরুরি।

 

শেয়ার