‘এবার কোচ সাকিব ও মাশরাফি’

সমাজের কথা ডেস্ক॥ কিছুদিন আগে বাংলাদেশ দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান। সোমবার আবারও বসলেন দুই অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গে। যে আলোচনার মূল বিষয়বস্তু, প্রধান কোচ না থাকায় আসছে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট ও শ্রীলঙ্কা সিরিজে মূল দায়িত্ব নিতে হবে সিনিয়র ক্রিকেটারদেরই।
নতুন বছরে প্রথম সিরিজের আগে যে বাংলাদেশ দল প্রধান কোচ পাচ্ছে না, সেটি অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল আগেই। সোমবার সংবাদ সম্মেলনে সেটি নিশ্চিত করে দিলেন বিসিবি প্রধান।
“এই সিরিজে বাইরে থেকে কোনো কোচ আসছে না। মোটামুটি আগেই আমরা বলেছিলাম। আগেই ঠিক করে রেখেছিলাম। এই সিরিজটাই শুধু। পরের সিরিজের আগে অবশ্যই কোচ নিয়ে আসতে পারলে নিয়ে আসব।”
“বোর্ড থেকে যে প্রতিনিধি থাকে, সাপোর্ট সার্ভিস যা থাকে, সেরকমই থাকছে। পাশাপাশি আমাদের খালেদ মাহমুদ সুজন, যে সবসময় ম্যানেজার হিসেবে কাজ করত, বোর্ড ও ক্রিকেটারদের মধ্যে একটা ইন্টারলিংক হিসেবে কাজ করত, সেটা সে থাকছে। যেহেতু সে থাকছে, তাকে একটা পদবী দিয়ে রাখা হচ্ছে।”
ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য কদিন আগেই প্রস্তুতি শুরু করেছে দল। খালেদ মাহমুদের সঙ্গে তত্ত্বাবধান করছেন ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ন। সাপোর্ট স্টাফের বাকিরাও চলে আসবেন শিগগির।
তবে সহকারি কোচ রিচার্ড হ্যালসল, বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশরা থাকলেও বোর্ড সভাপতি মূল দায়িত্ব দিচ্ছেন সিনিয়র ক্রিকেটারদের। বিশেষ করে দুই অধিনায়ক মাশরাফি ও সাকিবকে।
“আমাকে যদি আপনারা জিজ্ঞেস করেন, এবার কোচ হচ্ছেন সাকিব ও মাশরাফি। আমার যা মনে হয়। সিনিয়র ক্রিকেটারদের ওপর ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। ওরা বেশ আত্মবিশ্বাসী যে এই সিরিজ নিজেরাই সামলাতে পারবে। এবার তাই ক্রিকেটাররাই কোচ। এছাড়া সাপোর্ট স্টাফ যারা আছে, তারা তো থাকবেই।”
বাংলাদেশের সাবেক কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে সম্প্রতি দায়িত্ব নিয়েছেন শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের। নতুন কোচের জন্য ঢাকায় এসে সাক্ষাতকার দিয়ে যাওয়া ফিল সিমন্স দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন আফগানিস্তানের।

শেয়ার