বাগেরহাটে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত শিল্পকলা একাডেমির এখন বেহালদশা

কামরুজ্জামান, বাগেরহাট থেকে ॥ শহরের ব্যস্ততম দশানী মোড় এলাকায় প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বাগেরহাট জেলা শিল্পকলা একাডেমির অবস্থা এখন বেহাল। মাত্র ১১ বছর আগে নির্মিত এ ভবনটিতে ইতিমধ্যেই দেখা দিয়েছে বড় বড় ফাটল। আর এ একাডেমি ভবনে থাকা অত্যাধুনিক প্রযুক্তি আর বড় পর্দা দিয়ে ৭শ ৫০ জন দর্শক ধারন ক্ষমতা সম্পন্ন হল রুমটিও এখন করুন অবস্থায়। প্রয়োজনীয় বরাদ্দের অভাবে দীর্ঘদিন ধরে এই একাডেমিতে কোন উল্লেখ যোগ্য কার্যক্রম না থাকলেও দেখার কেউ নেই। একাডেমি ভবনটিকে এক বারও সংস্কার করা হয়নি।
খোজ নিয়ে জানাগেছে, ১৯৯৪ সালের ১৪ জুলাই তৎকালিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী এএসএম মোস্তাফিজুর রহমান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপিকা জাহানারা বেগম বাগেরহাট শহরের দশানী মোড় এলাকায় .৬৭ একর জমির উপর এই একাডেমি ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। পরবর্তিতে ২০০৬ সালে এই একাডেমি ভবনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে ওই বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর বাগেরহাট-২ আসনের তৎকালিন সংসদ সদস্য এমএএইচ সেলিম এই একাডেমি ভবনের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর সেই সময়ে জেলার নব নির্মিত এ শিল্পকলা একাডেমিতে জেলার শিল্পি ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠলেও তার বছর দুই পর আস্তে আস্তে এই শিল্পকলা একাডেমির কদর কমতে শুরু করে। বর্তমানে এ একাডেমিতে কার্যক্রম বলতে সংঙ্গীত, নৃত্য, আবৃত্তি, তবলা ও চারুকলা প্রশিক্ষণ বিভাগে ১শ ৫৬ জন ছাত্র-ছাত্রী আছে। জাতীয় বা অন্যান্য অনুষ্ঠান গুলো স্বাধীনতা উদ্যান বা পুরাতন শিল্পকলা একাডেমিতে করা হয়।
এ বিষয়ে কথা হলে বাগেরহাট শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, ২০০৬ সালে নতুন এ শিল্পকলার একাডেমি ভবন নির্মাণের পর মাত্র ১১ বছরের মাথায় প্রশাসনিক ভবনের একাধিক স্থানে বড় বড় ফাটল দেখা দিয়েছে। অডিটোরিয়ামের হলরুমের মঞ্চ সংলগ্ন দেয়ালে একটি ভয়াবহ ফাটল দেখা দিয়েছে, যেটি অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এছাড়া আমাদের যে হল রুমটি রয়েছে সেটি দীর্ঘদিন ধরে নাজুক অবস্থায় রয়েছে। হল রুমের সাউন্ড সিস্টেম, লাইটিং ও পর্দা অনেক আগেই নষ্ট হয়ে গেছে।
নিজস্ব হলরুম থাকতে জাতীয় বা অন্যান্য অনুষ্ঠানগুলো স্বাধীনতা উদ্যান বা পুরাতন শিল্পকলা একাডেমিতে কেন করা হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শহর থেকে একটু দূরে হওয়ার কারনে এই এলাকাটিতে কোন সাংস্কৃতিক পল্লী গড়ে ওঠেনি, যে কারনে এখানে কোন অনুষ্ঠান করলে শিল্পি বা অন্যান্য লোকজন আসতে চায় না। একারনে জাতীয় বা অন্যান্য অনুষ্ঠান গুলো স্বাধীনতা উদ্যান বা পুরাতন শিল্পকলা একাডেমিতে করা হয়।

শেয়ার